বাংলাদেশ-শ্রীলংকার মধ্যে চুক্তি ও সমঝোতা স্মারক সই

বাংলাদেশ-শ্রীলংকার মধ্যে চুক্তি ও সমঝোতা স্মারক সই

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করেছেন শ্রীলংকার প্রেসিডেন্ট মাইথ্রিপালা সিরিসেনা। প্রতিবেশী দুই দেশের শীর্ষ পর্যায়ের এ বৈঠকের পর একটি চুক্তি ও ১৩টি সমঝোতা স্মারক সই হয়। কূটনীতিক ও সরকারি কর্মকর্তাদের ভিসাবিহীন চলাচল, এছাড়া উপকূলীয় জাহাজ চলাচল, অর্থনৈতিক ও কৃষি খাতে সহযোগিতা, উচ্চ শিক্ষা, বিনিয়োগ কর্তৃপক্ষ, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি, উভয় দেশের কেন্দ্রীয় ব্যাংকের মধ্যে, পররাষ্ট্র সেবা বিষয়ক ইন্সটিটিউট, বাংলাদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের গবেষণা প্রতিষ্ঠান ‘বিস’ ও শ্রীলঙ্কার এলকেআইআইআরএসএস’র মধ্যে এবং রেডিও, টেলিভিশন ও চলচ্চিত্র, দুদেশের মান নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠান, সংবাদ সংস্থা এবং চট্টগ্রাম বিজিএমইএ ফ্যাশন ইন্সটিটিউট ও শ্রীলঙ্কা টেক্সটাইল ও অ্যাপারেল ইন্সটিটিউটের মধ্যে সহযোগিতা বাড়াতে এসব চুক্তি ও সমঝোতা স্মারক সই হয়।

শুক্রবার সকাল ৯টা ৫৫ মিনিটে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে যান মাইথ্রিপালা সিরিসেনা। সেখানে তাকে ফুল দিয়ে স্বাগত জানান প্রধানমন্ত্রী।

গতকাল বৃহস্পতিবার বেলা ১১টা ২৫ মিনিটে শ্রীলংকান এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইটে ঢাকায় পৌঁছেন মাইথ্রিপালা সিরিসেনা। এ সময় প্রেসিডেন্ট মো. আবদুল হামিদ শ্রীলংকার প্রেসিডেন্টকে বিমানবন্দরে স্বাগত জানান। বিকালে সাভারের জাতীয় স্মৃতিসৌধে গিয়ে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের শহীদদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট। পরে তিনি ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘর পরিদর্শন করে সেখানে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানান। জাদুঘরে তাকে স্বাগত জানান বঙ্গবন্ধুর নাতনি সায়মা ওয়াজেদ পুতুল।

এই সফরে ৭৩ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্টের সঙ্গে রয়েছে। শনিবার ঢাকা ছাড়ার আগে একটি বাণিজ্য সংলাপে অংশ নেওয়ার কথা রয়েছে মাইথ্রিপালা সিরিসেনার।

সম্পর্কিত সংবাদ
নিজস্ব প্রতিবেদক