‘বাবা সঙ্গীত ও সঙ্গীতের মানুষদের অনেক ভালোবাসতেন’

‘বাবা সঙ্গীত ও সঙ্গীতের মানুষদের অনেক ভালোবাসতেন’

কানাডা থেকে দেশে ফিরে প্রয়াত বাবা  আইয়ুব বাচ্চুর জন্য দেশবাসীর কাছে ক্ষমা চাইলেন একমাত্র পুত্র আনাফ তাজোয়ার আইয়ুব। বাবাকে শেষবারের মতো দেখতে এসে তিনি সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘আমার বাবা অজানাবশত কোন দোষ করে থাকলে সবাই তাঁকে মাফ করে দেবেন। বাবা সঙ্গীত ও সঙ্গীতের মানুষদের অনেক ভালোবাসতেন। সারা জীবন তিনি সঙ্গীতের জন্যই কাজ করেছেন। আমার বাবার জন্য সবাই দোয়া করবেন। মহান সৃষ্টিকর্তা যেন তাঁর বেহেশত নসিব করেন।’

এদিকে মেয়ে ফাইরুজ সাফরা আইয়ুবও বাবাকে শেষবারের মত দেখতে দেশে ফিরেন। এর আগে আজ ২০ অক্টোবর শনিবার সকাল ১০টা ৫৫ মিনিটে চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে গিয়ে পৌঁছে কিংবদন্তি ব্যান্ডশিল্পী আইয়ুব বাচ্চুর মরদেহ। সেখান থেকে মরদেহ নগরের পূর্ব মাদারবাড়ি এলাকায় নিয়ে যাওয়া হয়। বেলা ১২টার দিকে মাদারবাড়ি এলাকায় মরদেহ গিয়ে পৌঁছে।

বিকেল ৩টায় নগরের দামপাড়া জমিয়াতুল ফালাহ মসজিদে জানাজা শেষে মরদেহটি চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (চসিক) তত্ত্বাবধানে নগরের মাদারবাড়িতে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে চসিক মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন মরদেহটি আইয়ুব বাচ্চুর মামা মো. আবদুল হালিমকে হস্তান্তর করেন। এ সময় শেষ শ্রদ্ধা জানাতে ভিড় করে অসংখ্য ভক্ত-অনুরাগী।

আইয়ুব বাচ্চু আগেই ইচ্ছা প্রকাশ করেছিলেন- তাকে যেন মায়ের কবরের পাশে দাফন করা হয়। তার শেষ ইচ্ছা অনুযায়ী শনিবার বাদ আছর চৈতন্যগলির কবরস্থানে (নানার বাড়ির পারিবারিক কবরস্থান) মায়ের কবরের পাশে তাকে দাফন করা হবে।

১৮ অক্টোবর বৃহস্পতিবার হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মাত্র ৫৬ বছর বয়সে আইয়ুব বাচ্চু শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। জনপ্রিয় এই শিল্পীর মৃত্যুতে সারাদেশে নেমে এসেছে শোকের ছায়া। দেশের শীর্ষস্থানীয় ব্যান্ড এলআরবির দলনেতা আইয়ুব বাচ্চু ছিলেন একাধারে গায়ক, গিটারবাদক, গীতিকার, সুরকার ও সঙ্গীতপরিচালক।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট