বার্সাকে রুখে দিল ভালেন্সিয়া

বার্সাকে রুখে দিল ভালেন্সিয়া

চ্যাম্পিয়নস লিগে দুর্দান্ত বার্সেলোনা লা লিগায় বিবর্ণ। যার সবশেষটা রোববার দেখা গেল। নিজেদের ঘরের মাঠে ভ্যালেন্সিয়ার বিপক্ষে হোঁচট খেয়েছে আরনাস্তে ভালভার্দের শিষ্যরা। শুরুতে পেছনে পড়া ন্যু-ক্যাম্পের দলটি শেষ পর্যন্ত ড্র নিয়ে ফিরেছে।

রোববার বাংলাদেশ সময় রাতে লা লিগার ম্যাচে ১-১ গোলে ড্র করেছে বার্সেলোনা। এসেকিয়েল গারায়ের গোলে শুরুতেই এগিয়ে যায় ভ্যালেন্সিয়া। পরে লিওনেল মেসির গোলে সমতা ফেরে বার্সেলোনা।

এরআগে চলতি লা লিগায় বার্সেলোনার দিক হারানোর শুরুটা হয়েছিল জিরোনার সঙ্গে ২-২ গোলে ড্র করে। পরের ম্যাচে লেগানেসের কাছে হেরে বসে ভালভেরদের শিষ্যরা। ভ্যালেন্সিয়া ম্যাচের আগে এ লিগে অ্যাথলেটিকো বিলবাওয়ের সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করেছিল ন্যু-ক্যাম্পের দলটি।

ম্যাচের ২ মিনিটেই পিছিয়ে পড়ে বার্সেলোনা। কর্নার থেকে উড়ে আসা বলে থমাস ভারমিয়েলেনের হেড জেরার্দ পিকে গায়ে লেগে গোলমুখে বল পেয়ে যান এজিকুয়েল গারায়। আলতো টোকায় বল জালে জড়ান এ আর্জেন্টাইন ডিফেন্ডার।

তিন মিনিট পর আবারো গোল পেতে পারতো ভেলেন্সিয়া। মিচি বাতশুয়াইয়ের কোণাকোণি শট অল্পের জন্য লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। পরের মিনিটে আবার জিওফ্রে কোনদগবিয়ার শট লক্ষ্যভ্রষ্ট হলে গোলবঞ্চিত হয় ভেলেন্সিয়া। ১২ মিনিটে ভেলেন্সিয়াকে গোলবঞ্চিত করেন বার্সেলোনা গোলরক্ষক মার্ক টের স্টেগান। বাতশুয়াইয়ের শট ঝাঁপিয়ে পড়ে ঠেকান তিনি।

প্রথম ২০ মিনিটে পুরো এলোমেলো ছিল বার্সেলোনা। ২১ মিনিটে প্রথম লক্ষ্যে শট রাখতে পারে তারা। তবে মেসির শট সহজেই রুখে দেন গোলরক্ষক নেতো। তবে দুই মিনিট পর আর মেসিকে রুখতে পারেননি এ গোলরক্ষক। লুইস সুয়ারেজের সঙ্গে বল দেওয়া নেওয়া করে দারুণ এক শটে জাল খুঁজে নেন এ আর্জেন্টাইন।

৩৯ মিনিটে আবার এগিয়ে যেতে পারতো ভেলেন্সিয়া। ডেনিস চেরিসেভের শট নেলসন সেমেদো ফেরালে বল পেয়ে যান হোসে গায়া। কিন্তু তার কোণাকোণি শট অল্পের জন্য লক্ষ্যে থাকেনি। ৪৭ মিনিটে চেরিসভের দূরপাল্লার ভলি অল্পের জন্য জাল খুঁজে পায়নি।

৭৫ মিনিটে দিনের সেরা সুযোগটি পেয়েছিলেন ফিলিপ কৌতিনহো। মেসির পাস থেকে বল পেয়ে সামনে বাড়িয়ে ছিলেন সুয়ারেজ। ফাঁকায় বল পেয়ে শট নিতে দেরি করায় প্রতিপক্ষ ডিফেন্ডারের ট্যাকেলে হেলায় হারান স্কোর করার দারুণ সুযোগ। এরপর আরও কিছু আক্রমণ করলেও গোল আদায় করতে পারেনি কোন দলই। ফলে পয়েন্ট ভাগাভাগি করেই মাঠ ছাড়ে তারা।

এ ড্রয়ে ৮ ম্যাচে ১৫ পয়েন্ট নিয়ে তালিকার দ্বিতীয় স্থানে নেমে গেছে বার্সেলোনা। কারণ একই দিনের অন্য ম্যাচে সেল্তা ভিগোকে ২-১ গোলে হারিয়ে ১৬ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে উঠে গেছে সেভিয়া। আর রিয়াল বেতিসকে ১-০ গোলে হারিয়ে বার্সেলোনার সমান ১৫ পয়েন্ট আতলেতিকো মাদ্রিদেরও। তবে গোল ব্যবধানে তৃতীয় স্থানে আছে তারা। ১৪ পয়েন্ট নিয়ে চার নম্বরে আছে রিয়াল মাদ্রিদ।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট