বিদেশ সফরে কোহলির পাশে চাই স্ত্রীকে, আবেদনে বোর্ডের সায়

বিদেশ সফরে কোহলির পাশে চাই স্ত্রীকে, আবেদনে বোর্ডের সায়

স্ত্রী-গার্লফ্রেন্ড ইস্যুতে বিরাট কোহলির আবেদনে শিলমোহর দিল ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড। অধিনায়কের সুরে সুর মিলিয়েই এবার নিজেদের পলিসিতে বদল আনতে চলেছে বিসিসিআই।

এতদিন বোর্ডের নিয়মানুযায়ী ক্রিকেটারদের স্ত্রী-বান্ধবীরা বিদেশ সফরে কুড়ি দিনের বেশি সময় কাটাতে পারতেন না। কিন্তু সম্প্রতি বোর্ডকে এমন পলিসিতে বদল আনতে উদ্যোগী হন ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি। বিদেশ সফরে পুরো সময়ের জন্য স্ত্রী’কে পাশে চেয়ে আবেদন জানান তিনি। দলের অন্যান্য ক্রিকেটারেরাও অধিনায়কের দাবিকে সমর্থন জানান।

বোর্ড নিযুক্ত কমিটি অফ অ্যাডমিনিষ্ট্রেটরের অধীনে এতদিন আলোচনা সাপেক্ষ ছিল বিষয়টি। কোহলির আবেদন পূর্ণাঙ্গ বিবেচনা করে অবশেষে তাঁদের সিদ্ধান্ত জানাল সিওএ। কোহলির চাহিদাকে পূর্ণ সমর্থন জানিয়ে নিজেদের পুরনো পলিসিতে বদল আনল সুপ্রিম কোর্ট নিযুক্ত কমিটি। বিদেশ সফরে পুরো সময়ের জন্য স্ত্রী-বান্ধবীদের ক্রিকেটারদের পাশে থাকার অনুমোদন সুপারিশ করল সিওএ।

অনুমোদন সুপারিশ করলেও একটি শর্ত রেখেছে তারা। শর্তানুযায়ী এক্ষেত্রে স্ত্রী কিংবা বান্ধবীরা সফর শুরুর দশ দিন পর যোগ দিতে পারবেন ক্রিকেটারদের সঙ্গে। এরপর বাকি সফরের পুরোটাই প্রিয়জনের সঙ্গী হতে পারবেন তারা। শুধুমাত্র ক্রিকেটারেরা নন, এই পলিসির আওতায় আনা হয়েছে কোচ বা সাপোর্ট স্টাফেদেরও।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে দ্বিতীয় টেস্ট শুরুর আগে এবিষয়ে কথা বলতে সিওএ ডেকে পাঠায় অধিনায়ক বিরাট কোহলি, রোহিত শর্মা এবং কোচ রবি শাস্ত্রী’কে। তাঁদের সঙ্গে কথা বলেই এবিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। কারণ হিসেবে জানানো হয়েছে, লম্বা সফরে স্ত্রী-বান্ধবীরাই পাশে থেকে ক্রিকেটারদের সবচেয়ে ভাল সমর্থন জোগাতে সক্ষম। সফরের মাঝপথে পারফরম্যান্সে ঘাটতি হলে ক্রিকেটারদের দাওয়াই হয়ে উঠতে পারে কেবল তাঁদের স্ত্রী কিংবা বান্ধবীরাই। তাই প্রথমটায় বেঁকে বসলেও সমস্ত দিক বিবেচনা করেই এই সিদ্ধান্তে উপনীত হল সুপ্রিম কোর্ট নিযুক্ত বোর্ডের কমিটি অফ অ্যাডমিনিষ্ট্রেটর।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট