বিশ্বসেরা দলের ক্যাপ্টেন হলেন মিতালি

বিশ্বসেরা দলের ক্যাপ্টেন হলেন মিতালি

বিশ্বকাপটা অল্পের জন্য হাতছাড়া হলেও সান্তনা পুরস্কার পেলেন মিতালি রাজ৷ভারত অধিনায়ককেই আইসিসি মহিলা বিশ্বকাপের ক্যাপ্টেন বেছে নেওয়া হল৷

রোববার লর্ডসে বিশ্বকাপ ফাইনালে ইংল্যান্ডের কাছে ৯ রানে হারে ভারত৷ রুদ্ধশ্বাস লড়াইয়ে অভিজ্ঞতার কাছে হার মানেন মিতালি অ্যান্ড কোং৷ ফাইনালের চাপ নিতে না-পেরে মাত্র ২৮ রানে শেষ সাতটি উইকেট হারিয়ে বিশ্বকাপটা হাতছাড়া করে ভারতীয় মহিলাবিগ্রেড৷ মিতালির নেতৃত্বে ১২ বছর বিশ্বকাপ ফাইনালে ওঠে ভারত৷ টুর্নামেন্টে দারুণ শুরু করে ভারতীয় দল৷ লিগের ম্যাচে নিউজিল্যান্ডকে ১০৯ রানে হারিয়ে সেমিফাইনালে পৌঁছল ‘উইমেন ইন ব্লু’৷ সেমিফাইনালে ছ’বারের চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়াকে ১৮৬ রানে হারিয়ে ফাইনালের টিকিট পায় ভারত৷ ভারতীয় দলকে সামনে থেকে নেতৃত্ব দেন মিতালি৷ টুর্নামেন্টে দ্বিতীয় সর্বাধিক (৪০৯) রান তাঁর ঝুলিতে৷ মাত্র এক রানের জন্য সর্বোচ্চ রনের মালকিন হতে পারেননি মিতালি৷ ফাইনালে রান-আউট হয়ে প্যাভিলিয়ন ফেরেন তিনি৷ টুর্নামেন্টে একটি সেঞ্চুরি ও তিনটি হাফ-সেঞ্চুরি করেন মিতালি৷ তাঁকেই সোমবার বিশ্বকাপের সেরা ক্যাপ্টেন বেছে নেয় আইসিসি৷

মিতালি ছাড়াও আইসিসি-র বিশ্বকাপ দলে জায়গা করে নিয়েছেন আরও দুই ভারত কন্যা৷ অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ১৭১ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলা হরমনপ্রীত কউর এবং অল-রাউন্ডার দীপ্তি শর্মা৷ চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ড দলের চার ক্রিকেটার আইসিসি-র দলে সুযোগ পেয়েছেন৷ টুর্নামেন্টে সর্বাধিক রান করা তামসিন বিমাউন্ট (৪১০), ফাইনালে ম্যাচের সেরা আয়না শ্রুবসোলে, উইকেটকিপার সারা টেলর এবং বাঁ-হাতি স্পিনার অ্যালেক্স হার্টলে৷ দক্ষিণ আফ্রিকার তিন জন (লরা, কেপ ও নিয়েকার্ক৷ এছাড়া অস্ট্রেলিয়া দল থেকে সুযোগ পেয়েছেন এলিসি পেরি৷ দ্বাদশ খেলোয়াড় হিসেবে দলে জায়গা পেয়েছেন ইংল্যান্ডের নাটালিয়ে সিভার৷ বিশ্বকাপে ৩৬৯ রান এবং সাতটি উইকেট নিয়েছেন তিনি৷

মিতালি, টেলর ও শ্রুবসোলে এ নিয়ে দ্বিতীয়বার আইসিসি-র বিশ্বকাপ দলে জায়গা করে নিলেন৷ এর আগে ২০০৯ বিশ্বকাপে আইসিসি-র প্রথম একাদশে জায়গা পেয়েছিলেন মিতালি ও টেলর৷ এবং আর শ্রুবসোলে ২০১৩ বিশ্বকাপে আইসিসি-র দলে জায়গা পেয়েছিলেন৷

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট