কোথাও কি বেড়াতে যাচ্ছেন তাহলে টেনশনকে বলুন বাই বাই

কোথাও কি বেড়াতে যাচ্ছেন তাহলে টেনশনকে বলুন বাই বাই

শুধু ঐতিহাসিক বা ভৌগোলিক জ্ঞানলাভের জন্য নয়। বিনোদন বা মানসিক শান্তির জন্যও বেড়াতে যাওয়ার পরিকল্পনা করেন অনেকেই। কিন্তু বেড়াতে গিয়েও যদি সব সময় আপনাকে তাড়া করে বেড়ায় অহেতুক আশঙ্কা। তাহলে বেড়াতে যাওয়ার মজাটাই মাটি হয়ে যায়। তাই বেড়াতে গিয়ে টেনশন ফ্রি থাকাই উচিত। দেখে নেওয়া যাক কীভাবে তা সম্ভব।

১) আপনি যেখানে বেড়াতে যাবেন বলে ঠিক করেছেন, আগে থেকে জেনে নিন সেখানকার আচার-আচরণ। কী কী নিষিদ্ধ তাও জেনে নেওয়া উচিত। এমন অনেক জায়গাই আছে যেখানে অনেক কিছু খাওয়া নিষিদ্ধ। এবার সেখানে গিয়ে আপনি এসব নিয়ে বসে গেলে বিপদে পড়তে পারেন। তাই আগে থেকে খোঁজ নিয়ে যাওয়াই ভালো।

২) এখন অনেকেরই রক্তচাপের সমস্যা রয়েছে। তা থেকে মাথা ঘুরতে পারে। আবার বাইরে ঘুরতে বেরিয়ে কারও কারও মাথা ব্যথা করে। দেখা দেয় বমি বমি ভাব। তাই বেরোনোর আগে অনেকেই ভয় পান, বেড়াতে বেরিয়ে যদি শরীর খারাপ হয়। একেবারেই ভাববেন না। বেরোনোর আগে ব্যাগে গুছিয়ে নিন প্রয়োজনীয় ওষুধপত্র। দরকার হলে ভ্রমণের আগে আপনি চিকিৎসকের পরামর্শও নিতে পারেন।

৩) বেড়াতে বেরিয়ে অহেতুক চিন্তা নয়। মোবাইল ফোন সরিয়ে রেখে জাস্ট এনজয় করুন। বাড়তি উদ্বেগ অনেক সময় অসুস্থতার কারণ হয়ে দাঁড়ায়।

৪) যেখানেই বেড়াতে যান। সস্তার টিকিট বুক করবেন না। তাহলে আপনি রাস্তায় বিপদে পড়তে পারেন। মাথায় রাখবেন, সস্তায় কোনও জিনিসই ভালো হতে পারে না। তাই সস্তার উড়ানের টিকিট বুক না করে বরং বেশি দামি টিকিট কাটুন। তাহলে সময়ে গন্তব্যে পৌঁছতে পারবেন। বিরক্তিকর বা অস্বস্তিতে পড়তে হবে না।

৫) বেরোনোর আগে সুরক্ষার সবদিকগুলি খতিয়ে দেখুন। পরে যেন অসুবিধায় পড়তে না হয়। আর বেড়াতে যাওয়া মানে একদিকে তা যেমন ক্লান্তিকর, অন্যদিকে তেমনই উত্তেজনাপূর্ণ। তাই মনকে নিজের বশে রাখার চেষ্টা করুন। বাড়তি উত্তেজনা ডেকে আনতে পারে বিপদ।

*রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন*
সম্পর্কিত সংবাদ
Leave a reply
ডেস্ক রিপোর্ট