ব্রেক্সিট পরিকল্পনা উপস্থাপনে ব্রিটেনের হাতে ১২ দিন সময় আছে

ব্রেক্সিট পরিকল্পনা উপস্থাপনে ব্রিটেনের হাতে ১২ দিন সময় আছে

ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) কাছে ব্রেক্সিট পরিকল্পনা উপস্থাপনের জন্য ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের হাতে আর ১২ দিন সময় আছে বলে জানিয়েছেন ফিনল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী অ্যান্তি রিন্নে। ইইউ-এর পর্যায়ক্রমিক প্রেসিডেন্টের বর্তমান দায়িত্ব পালন করছে ফিনল্যান্ড।

অ্যান্তি রিন্নে বলেন, তিনি এবং ফরাসি প্রেসিডেন্ট এম্যানুয়েল ম্যাকরোঁ একমত হয়েছেন যে সেপ্টেম্বরের শেষ নাগাদ যুক্তরাজ্যকে তাদের প্রস্তাব লিখিত আকারে উপস্থাপন করতে হবে। না হলে এর সময় শেষ হয়ে যাবে। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি জানিয়েছে, দরকষাকষি অব্যাহত রেখে যথাসময়ে পরিকল্পনা উপস্থাপনে কাজ করছে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়।

ইইউ থেকে ব্রিটেনের বের হয়ে যাওয়া বা ব্রেক্সিট ইস্যুতে সমঝোতায় পৌঁছাতে ব্যর্থ হয়ে গত মে মাসে পদত্যাগের ঘোষণা দেন ব্রিটেনের তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে। তিনি সরে দাঁড়ানোর পর ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হন কট্টর ব্রেক্সিটপন্থী বরিস জনসন। নির্বাচিত হওয়ার পর আগামী ৩১ অক্টোবর নির্ধারিত সময়ের মধ্যে ব্রেক্সিট বাস্তবায়নের ঘোষণা দিয়েছেন তিনি। এই সময়ের মধ্যে ব্রেক্সিট চুক্তিতে একমত হতে না পারলেও ব্রেক্সিট বাস্তবায়নের ঘোষণা দিয়েছেন তিনি। তবে আগামী ১৭ অক্টোবর ইইউ নেতাদের গুরুত্বপূর্ণ সম্মেলনে চুক্তির সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানান তিনি।

ব্রিটিশ সরকার জানিয়েছে, জুলাইয়ে বরিস জনসন প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব নেওয়ার পর ইইউ-এর সঙ্গে আলোচনায় অগ্রগতি হয়েছে। বেশ কয়েকটি বিকল্প প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে বলে জানালেও বরিস জনসন বারবার বলে আসছেন এসব পরিকল্পনা প্রকাশ করতে চান না তিনি। তিনি বলেছেন, প্রকাশ্যে দর কষাকষি করতে চান না তিনি। তবে যুক্তরাজ্য লিখিত আকারে কোনও প্রস্তাব দিচ্ছে না বলে সমালোচনা করে আসছে ইইউ।

গত সোমবার বরিস জনসনের সঙ্গে এক বৈঠকের পর ইইউ কমিশনের প্রেসিডেন্ট জেন ক্লদ জাঙ্কার ওই বৈঠককে গঠনমূলক আখ্যা দেন। তবে তিনি বলেন, যতক্ষণ প্রস্তাব উপস্থাপন করা না হচ্ছে ততক্ষণ আমি আপনাদের চোখের দিকে সরাসরি তাকিয়ে বলতে পারবো না যে সত্যিকার কোনও অগ্রগতি অর্জিত হয়েছে।

বুধবার ফরাসি প্রেসিডেন্টে এম্যানুয়েল ম্যাকরোঁর সঙ্গে বৈঠকের পর সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেণে ইইউ-এর বর্তমান প্রেসিডেন্ট ফিনল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী অ্যান্তি রিন্নে। তিনি বলেন, ‘আমরা দুজনেই সম্মত হয়েছি যে যুক্তরাজ্যকে টিকে থাকতে হলে এখন বরিস জনসনকেই লিখিত আকারে তার নিজের প্রস্তাব উপস্থাপন করতে হবে। সেপ্টেম্বরের শেষ নাগাদ পর্যন্ত যদি কোনও প্রস্তাব না পাই তাহলে এটি শেষ হয়ে যাবে’। নতুন এই সময়সীমা নিয়ে ফিনল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী আগামী কয়েক দিনের মধ্যে ইউরোপীয়ান কাউন্সিলের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড টাস্ক ও বরিস জনসনের সঙ্গে আলোচনা করতে চান। তবে তার এই অবস্থানের সঙ্গে অন্য ইউরোপীয় দেশগুলো এখনও একমত হয়নি।

*রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন*
সম্পর্কিত সংবাদ