ভক্তদের ভালবাসায় আপ্লুত সাকিব-পত্নী

ভক্তদের ভালবাসায় আপ্লুত সাকিব-পত্নী

শঙ্কা কাটিয়ে শুক্রবারই মেলবোর্নের হাসপাতাল ছেড়েছেন সাকিব আল হাসান। ঐ দিনই দেশের একাধিক মসজিদে তার দ্রুত আরোগ্য কামনা করে দোয়া ও মিলাদের আয়োজন করেন ভক্তরা। যা দেখে অভিভূত, আবেগ আপ্লুত এবং সম্মানিত বোধ করছেন বাংলাদেশ টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক। ব্যাপারটি নিজের ভেরিফাইড ফেসবুকে জানিয়েছেন তিনি।

কঠিন সময়ে ভক্তদের ভালবাসা ও প্রার্থনা পেয়ে আনন্দিত সাকিব। তিনি আশা করেন দ্রুতই সুস্থ হয়ে সম্মানের সাথে প্রাণপ্রিয় দেশের প্রতিনিধিত্ব করবেন। শুক্রবার রাতে নিজের ভেরিফাইড ফেসবুকে ভক্তদের উদ্দেশ্যে এমনটাই বলেছেন সাকিব, ‘সমগ্র বাংলাদেশ এবং বিশ্বজুরে আমার এত অগনিত এবং দারুণ সব ভক্তদের পেয়ে আমি সত্যিই অভিভূত, আবেগ আপ্লুত এবং সম্মানিত বোধ করছি। আপনাদের এত এত ভালবাসা এবং প্রার্থনার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ। ইন শা আল্লাহ আমি খুব শীঘ্রই মাঠে ফিরবো এবং সম্মানের সাথে প্রাণপ্রিয় দেশের প্রতিনিধিত্ব করবো। আমার পক্ষ থেকে সবার জন্য ভালবাসা রইলো।’

সাকিবের সুস্থতার জন্য তার ভক্তরা শুক্রবার দেশের একাধিক মসজিদে দোয়া ও মিলাদ আয়োজন করায় অভিভুত স্ত্রী উম্মে আহমেদ শিশিরও। গতকালই তিনি তার ভেরিফাইড ফেসবুক পেইজে এ ব্যাপারে লিখেন, ‘এটা প্রকাশ করার মতো ভাষা আমার জানা নেই। এই মানুষগুলো সাকিব আল হাসানের দ্রুত আরোগ্যের জন্য মিলাদ এবং দোয়ার আয়োজন করেছে। আমি জানতে পেরেছি তারা সবাই সাকিবের ভক্ত, যা আমাকে অবাক করে দিয়েছে। এই দোয়া ও মিলাদের আয়োজন দেশের ১০টি মসজিদে করা হয়েছে। পরম করুণাময় আল্লাহ তাকে (সাকিব) আপনাদের দোয়া ও ভালোবাসায় ভরিয়ে দিয়েছেন। আলহামদুলিল্লাহ্‌, সে খুব দ্রুত চোট থেকে সেরে উঠছে। মহাপরাক্রমশালী আল্লাহ্‌, আমাদের প্রতি দয়ালু হয়েছেন।’

ধীরে ধীরে সুস্থ হয়ে উঠছেন সাকিব। সংক্রমণ প্রায় সেরে যাওয়ার পথে। শুক্রবারই হাসপাতালছেড়েছেন। সব ঠিক থাকলে দুই-তিন দিনের মধ্যে হয়তো দেশেও ফিরবেন তিনি। এরপরই অবস্থা বুঝে শুরু করবেন পুর্নবাসন। যদি এ বাঁ হাতি নিজেকে সুস্থ বোধ করেন, তবে মাঠেও নেমে যেতে পারেন দেশের জার্সিতে। এরমধ্যে নতুন করে যদি আবার ব্যথা অনুভব করেন এ অলরাউন্ডার তখনই নিতে হবে অস্ত্রোপচারের প্রস্তুতি।

দেশে ফিরে হয়তো পুরোপুরি সুস্থ হয়েই মাঠে নামতে চাইবেন সাকিব। কেননা আগামী বছরের মে’র শেষ দিকে বিশ্বকাপ। তার আগেও রয়েছে টাইগারদের বেশ কয়েকটি সিরিজ। সবচেয়ে বড় কথা সামনে এ বাঁ হাতির লম্বা ক্যারিয়ার। তাছাড়া বাংলাদেশেরও তার সার্ভিস যতদিন সম্ভব প্রয়োজন।

*রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন*
সম্পর্কিত সংবাদ
Leave a reply
ডেস্ক রিপোর্ট