ভারতকে ইনিংস ব্যবধানে হারাল ইংল্যান্ড

ভারতকে ইনিংস ব্যবধানে হারাল ইংল্যান্ড

লর্ডসে ইংল্যান্ড বোলারদের সুইংয়ে উড়ে গেল ভারতের দ্বিতীয় ইনিংসের শক্তিশালী ব্যাটিং লাইন আপ। অনায়াসে জিতল ইংলিশরা। দ্বিতীয় টেস্ট ইনিংস ও ১৫৯ রানে জিতেছে জো রুটের দল। পাঁচ ম্যাচের সিরিজে স্বাগতিকরা এগিয়ে ২-০ ব্যবধানে।

প্রথম ইনিংসে ২৮৯ রানে এগিয়ে থেকে কোহলিদের দ্বিতীয়বার ব্যাট করার আমন্ত্রণ জানান রুটরা৷ ভারতের ১০৭ রানের জবাবে ব্যাট করতে নেমে ইংল্যান্ড তৃতীয় দিনের খেলা শেষ করেছিল ৬ উইকেটে ৩৫৭ রান তুলে৷ এরপর স্বাগতিকরা ৭ উইকেটে ৩৯৬ রান তুলে প্রথম ইনিংস ঘোষণা করে৷

জনি বেয়ারস্টো (৯৩) অল্পের জন্য শতরান হাতছাড়া করেন৷ তবে ব্যক্তিগত সেঞ্চুরি পূর্ণ করেছিলেন ক্রিস ওকস৷ তৃতীয় দিনের শেষে ওকস ১২০ ও স্যাম কুরান ২২ রানে অপরাজিত ছিলেন৷ চতুর্থ দিনের শুরু থেকেই আগ্রাসী মেজাজে ব্যাটিং করেন গত দিনের দুই অপরাজিত তারকা৷

কুক্রিস ওকস শেষমেশ ব্যক্তিগত ১৩৭ রানে অপরাজিত থেকে যান৷ ভারতের হয়ে প্রথম ইনিংসে তিনটি করে উইকেট নেন শামি ও হার্দিক পান্ডিয়া৷

দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই বিপর্যয়ের মুখে পড়ে ভারত৷ মাত্র ১৩ রানের মধ্যে দুই ওপেনার মুরলি বিজয় ও লোকেশ রাহুলের উইকেট হারায় তারা৷ দুজনকেই ফিরিয়ে দিয়েছেন জেমস অ্যান্ডারসন৷ পুজারা (১৭), রাহানে (১৩), কোহলি (১৭), কার্তিক (০) ফিরে যান একে একে। এ চারটি উইকেটই নেন ক্রিস বোর্ড।

৬ উইকেটে ৬৬ রান নিয়ে চা বিরতিতে যায় ভারত। বিরতি থেকে ফিরে একটু ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করেন হার্দিক পান্ডিয়া ও রবিচন্দ্র আশ্বিন। তারা দুজনে ওয়ানডে স্টাইলে ব্যাট চালিয়ে ৫৯ বলে ৫০ রান জমা করেন। কিন্তু এর পরেই ফেরেন পান্ডিয়া। তিনি ৪৩ বলে পাঁচটি চারের মারে ২৬ রান করে ওকসের বলে এলবিডব্লিউর ফাঁদে পড়েন।

এরপর ইংল্যান্ডের পেসারদের সামনে টিকতে পারেননি কুলদিপ যাদব, কার্তিক ও মোহাম্মদ শামি। তারা তিনজনই শূন্য রানে সাজঘরে ফেরেন। আর রবিচন্দ্র আশ্বিন এক প্রান্ত আগলে রেখে তাদের আসা যাওয়া দেখেন! শেষ পর্যন্ত ৪৮ বলে ৩৩ রান করে অপরাজিত থাকেন আশ্বিন। তিনিও পান্ডিয়ার সমান ৫টি চার মেরেছেন। ভারতের দ্বিতীয় ইনিংসে বোলার আশ্বিনের রানই সর্বোচ্চ!

ইংল্যান্ডের পক্ষে ক্রিস ব্রড ৪৪ রানে ৪ উইকেট ও অ্যান্ডারসন ২৩ রান দিয়ে ৪ উইকেট নেন। ২৪ রানে দুই ইউকেট পেয়েছেন ওকস।

*রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন*
সম্পর্কিত সংবাদ
Leave a reply
ডেস্ক রিপোর্ট