ভারতের সঙ্গে আলোচনার কোনো সুযোগ নেই: ইমরান

ভারতের সঙ্গে আলোচনার কোনো সুযোগ নেই: ইমরান

জম্মু-কাশ্মীর নিয়ে বর্তমান উত্তেজনার পরিস্থিতিতে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান জানিয়ে দিলেন, ভারতের সঙ্গে আলোচনার কোনো সুযোগ নেই।

নয়াদিল্লির সঙ্গে এর আগে সব ধরনের শান্তি আলোচনা ব্যর্থ হয়েছে বলে এক সাক্ষাৎকারে নিউইয়র্ক টাইমসকে তিনি জানান।

ডন জানায়, বুধবারে নিউইয়র্ক টাইমসে প্রকাশিত সাক্ষাৎকারটিতে ইমরান খান বলেন, “তাদের সঙ্গে কথা বলার আর কিছুই নেই। আমার দিক দিয়ে সব আলোচনা আমি করেছি।”

তিনি বলেন, “দুর্ভাগ্য হচ্ছে, এখন পর্যন্ত শান্তি স্থাপনের জন্য আমি যেসব প্রস্তাব দিয়েছিলাম, তারা সেগুলোতে তুষ্টই ছিল শুধু, কোনো পদক্ষেপ নেয়নি।”

কাশ্মীর পরিস্থিতিকে সামনে রেখে ইসলামাবাদে নিজের অফিসে বসে দেওয়া এই সাক্ষাৎকারে ইমরান খান বলেন, “আমাদের এর চেয়ে বেশি কিছু করার নাই।”

৫ আগস্ট ভারতের বিজেপি সরকার জম্মু-কাশ্মীর থেকে দীর্ঘ ৭০ বছরের স্বায়ত্তশাসনের অধিকার কেড়ে নেওয়ার পর সৃষ্ট পরিস্থিতিতে পাক প্রধানমন্ত্রী এমন মন্তব্য করেন।

ভারত সংবিধানের ৩৭০ ধারা বাতিল করে কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা কেড়ে নেয়। তার আগের দিন থেকে অঞ্চলটিতে কঠোর সামরিক পরিস্থিতি সৃষ্টি করা হয়।

সাবেক দুই মুখ্যমন্ত্রীসহ এখন পর্যন্ত অন্তত চার হাজার মানুষ রাজনৈতিক নেতা ও নাগরিককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

কারফিউ জারি করে সেখানকার মানুষকে রীতিমতো গৃহবন্দি করে রাখা হয়েছে। বন্ধ করে রাখা হয়েছে ইন্টারনেট সংযোগ এবং টেলিকমিউনিকেশন ব্যবস্থা। এখন পর্যন্ত কাশ্মীরের সঙ্গে পুরো বিশ্বের যোগাযোগ কার্যত বিচ্ছিন্ন।

ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীর নিয়ে এর আগে ইমরান খান জানান, সেখানকার ৮০ লাখ মানুষ এখন প্রাণ ঝুঁকিতে আছে, এটাই এখন তার কাছে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।

তিনি বলেন, “আমরা সবাই চিন্তিত যে, সেখানে জাতিগত নিধন এবং গণহত্যা সংগঠিত হতে পারে।”

ইমরান খান ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে ‘একজন ফ্যাসিস্ট এবং হিন্দু আধিপত্যবাদী’ হিসেবে বর্ণনা করেন। তার মতে, কাশ্মীরের সংখ্যালঘু মুসলিম জনগোষ্ঠীকে নির্মূল করতে এবং অঞ্চলটিকে হিন্দু অধ্যুষিত করে তুলতে চান মোদি।

*রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন*
সম্পর্কিত সংবাদ