ভারতে ‘ধূমপায়ী’ বন্য হাতিকে ঘিরে বিজ্ঞানীদের বিস্ময়

ভারতে ‘ধূমপায়ী’ বন্য হাতিকে ঘিরে বিজ্ঞানীদের বিস্ময়

একটি ৪৮ সেকেন্ডের ভিডিও প্রকাশ করেছে ভারতের বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ সোসাইটি। এতে দেখা গেছে হাতিটির মুখ থেকে ধোয়া বের হচ্ছে।

এক বিবৃতিতে সংস্থাটি বলছে, ওই ভিডিওতে বন্য হাতিটিকে এমন কাজ করতে দেখা গেছে যা কোনো হাতিকে কখনোই করতে দেখা যায়নি।

হাতিটির এই আচরণ বিস্মিত করেছে বন্যপ্রাণী গবেষকদের। ভারতের বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ সোসাইটির বিজ্ঞানী ভিনয় কুমার কর্ণাটক রাজ্যের নগরহোল জঙ্গলে কাজে গিয়ে অনেকটা হঠাৎ করেই হাতিটিকে ভিডিও করেন তিনি।

জঙ্গলে ক্যামেরা বসানো ছিল বাঘের গতিবিধি আর আচরণের ফুটেজ তোলার জন্য। সকাল বেলা কাছেই হাতিটিকে দেখে তার ভিডিও শুরু করলেন কুমার। যাতে দেখা যাচ্ছে জঙ্গলে কেউ আগুন ধরিয়েছিল। সেটি নিভে যাওয়ার পর সেখানে তখনো কয়লাগুলো জ্বলছিল।

ভিনয় কুমার বলেন, হাতিটি সেই গরম কয়লা তুলে গিলে ফেলছিল বলে মনে হচ্ছিলো। আর সুর দিয়ে প্রচুর ছাই ও ধোঁয়া ছাড়ছিলো। দেখে মনে হচ্ছিলো যেন সে ধূমপান করছে।

২০১৬ সালের এপ্রিলে তোলা ওই ভিডিওটি মাত্রই প্রকাশ করা হয়েছে। কুমার বলছেন এই ঘটনার যে কতখানি গুরুত্ব রয়েছে সেটি তিনি বুঝতে পারেন নি। গবেষকরা অনেক কিছুই আবিষ্কার করেন। কিন্তু হাতির এমন আচরণ মানুষের চোখে এর আগে কখনো ধরা পরে নি বলে জানিয়েছে ভারতের বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ সোসাইটি। বিজ্ঞানীরা বলছেন হাতিটি কেন এমন করছিলো সে বিষয়ে তারা এখনো নিশ্চিত নন।

জীববিজ্ঞানী ভারুন গোস্বামী হাতি নিয়ে গবেষণা করেন। তিনি বলেন, শরীরে উৎপন্ন টক্সিন নিয়ন্ত্রণে কয়লার উপকারিতা রয়েছে। হতে পারে হাতিটি সেই কারণে তাতে আকৃষ্ট হয়েছে। তাছাড়া কয়লা মল নরম করতেও সহায়তা করে। কিন্তু তবুও মেয়ে হাতিটির এই আচরণের ব্যাখ্যা খুঁজে চলেছেন বিজ্ঞানীরা।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট