“ভালো অভিনেত্রী হওয়ার জন্য আগে ভালো মানুষ হতে হবে”

“ভালো অভিনেত্রী হওয়ার জন্য আগে ভালো মানুষ হতে হবে”

টিভি নাটকের ব্যস্ত অভিনেত্রী অহনা। বিভিন্ন চ্যানেলে প্রচার চলছে তার অভিনীত একাধিক ধারাবাহিক নাটক। এসবের মধ্যে উল্লেখযোগ্য কয়েকটি হলো ‘রসের হাড়ি’, ‘ছায়াবিবি’, ‘লাকি থার্টিন’ ও ‘কমেডি-৪২০’।

এদিকে সম্প্রতি বৈশাখী টিভিতে প্রচার শুরু হয়েছে তার অভিনীত নতুন ধারাবাহিক নাটক ‘বউ শাশুড়ি’। পারিবারিক গল্পের এই নাটকটি নির্মাণ করেছেন আকাশ রঞ্জন। অ

হনা বলেন, আমাদের সমাজে বউ-শাশুড়ির সম্পর্ক টক-ঝাল-মিষ্টির মতো। পরিবারগুলোতে এখন সম্পর্কের টানাপড়েন নিত্যনৈমিত্তিক বিষয়। নাটকে এমনই এক গল্প তুলে ধরা হয়েছে।

এর আগে এক সাক্ষাৎকারে ধারাবাহিক নাটকে কাজ না করার সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছিলেন অহনা। তবে কি সেই সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসেছেন? এই প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, না সরে আসিনি। এই নাটকটির শুটিং আমার অনেক আগে থেকেই করা। আমি আগেই বলেছি প্রচার চলতি ও সিডিউল দেওয়া ধারাবাহিকগুলোর বাইরে নতুন কাজ হাতে নিচ্ছি না। ধারাবাহিক নাটকে কাজ না করার সিদ্ধান্তের সময় এই নাটকের কিছু শুটিং করেছি। তবে এখন নতুন কোনো ধারাবাহিকের সিডিউল দেওয়া নেই। অহনার এখন ব্যস্ততা কি নিয়ে?

তার ভাষ্য, প্রচার চলতি ধারাবাহিকগুলোর বাইরে একক নাটক ও ওয়েব সিরিজের দিকে মনোযোগ দিয়েছি। এরইমধ্যে সুমন আনোয়ারের ‘সদরঘাটের টাইগার’ শিরোনামের একটি ওয়েব সিরিজে অভিনয় করেছি। এখন টিভি নাটকের পাশাপাশি নানা ধরনের গল্প নিয়ে ওয়েব সিরিজ নির্মাণ হচ্ছে। এতে বাজেটও ভালো থাকছে। তাই কাজ করতে সবাই স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করছে। বিশ্বের নানা দেশে ওয়েব সিরিজ বেশ জনপ্রিয়। আমাদের দেশের দর্শকরাও এর প্রতি আগ্রহী হয়ে উঠছেন।

সম্প্রতি টিভি নাটকের চারটি সংগঠন নতুন নীতিমালা প্রকাশ করেছে। এতে শিল্পীদের চুক্তিবদ্ধ হওয়াসহ সবাইকে নিয়মনীতি মেনে কাজ করার কথা বলা হয়েছে। এই বিষয়টি নিয়ে অহনার মন্তব্য কি?  তিনি বলেন, সব ক্ষেত্রেই একটি সুনির্দিষ্ট নীতিমালা থাকে। সেখানে আমরা কেন এর বাইরে যাবো। আমি মনে করি, আমাদের সংগঠনগুলো এই বিষয়গুলোর প্রতি আরো বেশি নজরদারি করলে সবাই নিয়ম নীতি মেনে চলতে বাধ্য হবেন। সঠিক নিয়ম নীতি  মেনে না চলার কারণে আমাদের অনেকেই পেশার প্রতি সঠিক আচরণ করছেন না। ছোট পর্দার পাশাপাশি বড় পর্দায়ও দেখা গেছে এই অভিনেত্রীকে। সর্বশেষ তিনি সাইমনের বিপরীতে ‘চোখের দেখা’ শিরোনামের একটি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন। কিন্তু এখন বড় পর্দায় নেই তার কোনো ব্যস্ততা। চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য তিনি আগ্রহী নন বলেও জানান। বললেন, অভিনয়ের ক্ষেত্রে এখন ছোট পর্দাতেই স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করি। আলাপনে এই অভিনেত্রীর কাছে জানতে চাওয়া হয়, একজন সু-অভিনেত্রীর গুণাবলী কি?

তিনি বলেন, ভালো অভিনেত্রী হওয়ার জন্য আগে ভালো মানুষ হতে হবে। এছাড়া অবশ্যই কাজের প্রতি একাগ্রতা ও ভালোবাসা থাকতে হবে। শুধু কাজের জন্য কাজ করলেই কেউ ভালো অভিনেত্রী হয়ে ওঠে না। অথবা প্রতিদিন টেলিভিশনের পর্দায় দেখা গেলেও তাকে সু-অভিনেত্রী বলা যায় না। আমাদের ফেরদৌসী মজুমদার, সুবর্ণা আপাদের দিকে তাকালে বুঝতে পারি সু-অভিনেত্রী কাকে বলে। ক্যারিয়ারের এই সময়ে এসেও তারা অনেক জনপ্রিয়। অহনা অভিনয়ের বাইরে নিজেকে কোথায় দেখতে চান?

এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, অভিনয়ের বাইরে আমার একটি বিউটি পার্লারের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান আছে। নাম ‘অ-হ-মি’। ব্যবসায়ী হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে চাই। একটা সময় হয়তো আমাকে অভিনয়ে বিরতি টানতে হবে। সেই সময়ে আমি অন্যের ওপর নির্ভরশীল হতে চাই না। এছাড়া ব্যবসা করা আমার একটি স্বপ্ন। ‘অ-হ-মি’র মধ্য দিয়ে সেই স্বপ্ন পূরণ হয়েছে। এরইমধ্যে আমার প্রতিষ্ঠানে যারা সেবা নিয়েছেন তাদের অনেকের কাছ থেকেই প্রশংসা পেয়েছি।

*রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন*
সম্পর্কিত সংবাদ