‘মাইল্ড স্ট্রোক করেছিলেন খালেদা’

‘মাইল্ড স্ট্রোক করেছিলেন খালেদা’

গত ৫ জুন মাইল্ড স্ট্রোক করেছিলেন বেগম খালেদা জিয়া। এমনটাই জানিয়েছেন তাঁর ব্যক্তিগত চিকিৎসক। বিকালে কারাগারে খালেদা জিয়ার সঙ্গে ঘণ্টাব্যাপী সাক্ষাত শেষে তার ব্যক্তিগত চিকিৎসক মেডিসিন বিশেষজ্ঞ ডা. এফএম সিদ্দিকী সাংবাদিকদের এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি বলেছেন, কারাগারে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ ও যথাযথ চিকিৎসা সেবার অভাবে গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। গত ৫ই জুন দাঁড়ানো অবস্থা থেকে তিনি ফ্লোরে পড়ে যান। এরপর ৫-৭ মিনিট অজ্ঞান ছিলেন।

তখন তার কি হয়েছিল তিনি বুঝতে পারেনি। ডা. সিদ্দিকী বলেন, আমরা ধারণা করছি বিএনপি চেয়ারপারসনের মাইন্ড স্ট্রোক হয়েছিল। এটা মেজর স্ট্রোকের লক্ষণ। সুচিকিৎসা না পেলে আগামীতে যে কোন সময় তিনি মেজর স্ট্রোকের শিকার হতে পারেন।

আমরা কারাকর্তৃক্ষের কাছে ৪ পৃষ্ঠার একটি মেডিকেল রিপোর্ট দিয়েছি। ডা. সিদ্দিকী বলেন, খালেদা জিয়ার অনেকগুলো মেডিকেল টেস্ট করা দরকার। যেগুলো কারাগারে নেই। তাই আমরা উনাকে ইউনাইটেড হাসপাতালে নিয়ে টেস্ট করার জন্য অনুরোধ করেছি। সেই সঙ্গে ইউনাইটেড হাসপাতালে ভর্তির মাধ্যমে চিকিৎসা দেয়ার জন্যও দাবি জানিয়েছি। এর আগে বিকাল চারটা ১০মিনিটে কারাগারে ঢুকেন খালেদা জিয়ার ব্যক্তিগত চার চিকিৎসক।

তারা হলেন মেডিসিন বিশেষজ্ঞ ডা. এফএম সিদ্দিকী, বিশেষজ্ঞ নিউরো সার্জন ডা. ওয়াহিদুর রহমান, চক্ষু বিশেষজ্ঞ প্রফেসর ডা. আবদুল কুদ্দুস, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বোনের ছেলে মেডিসিন বিশেষজ্ঞ ডা. মো. মামুন।

ওদিকে শুক্রবার পরিবারের সদস্যরা কারাগারে খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাত শেষে অভিযোগ করেন বিএনপি চেয়ারপারসন তিন সপ্তাহ যাবত জ্বরে আক্রান্ত। তার পা ফুলে গেছে। তিনি শারীরিক ভারসাম্য রাখতে পারছেন না। বিগত ৫ই জুন মাথা ঘুরে পড়ে গিয়েছিলেন তিনি। এমন অভিযোগের পরই চিকিৎসকরা কারা কর্তৃপক্ষের অনুমতি নিয়ে খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করতে যান।

ওদিকে খালেদা জিয়ার পরিবারের সদস্যরা কারাগার থেকে ফেরার পর রাতে দলটির নয়াপল্টন কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে জরুরি সংবাদ ব্রিফিং ডেকে খালেদা জিয়ার সুচিকিৎসার দাবি জানিয়ে সারাদেশে বিক্ষোভ কর্মসূচি ঘোষণা করেন দলটির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

রিজভী বলেন, দেশনেত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ শেষে তার সম্পর্কে নিকটাত্মীয়রা যে বর্ণনা দিয়েছেন, তা হৃদয়বিদারক। তারা বলেছেন, ৫ই জুন দেশনেত্রী দাঁড়িয়ে থাকা অবস্থায় মাথা ঘুরে পড়ে গিয়েছিলেন।

উল্লেখ্য, চলতি বছরের ৮ই ফেব্রুয়ারি থেকে দুর্নীতি দমন কমিশনের দায়ের করা জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় ৫ বছরের সাজা নিয়ে পুরান ঢাকার নাজিম উদ্দিন রোড়ের পরিত্যক্ত কেন্দ্রীয় কারাগারের ডে কেয়ার সেন্টারে বন্দী রয়েছেন খালেদা জিয়া।

এর আগে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়লে ১লা এপ্রিল ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চারজন চিকিৎসক সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য পরীক্ষা করতে কারাগারে যান। পরে তাদের সুপারিশেই ৭ই এপ্রিল রাজধানীর শাহবাগে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে নিয়ে কয়েকটি এক্স-রে করা হয়েছিল।

*রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন*
সম্পর্কিত সংবাদ
Leave a reply
ডেস্ক রিপোর্ট