মানজুকিচ-রোনালদো নৈপুণ্যে ছুটছে জুভেন্টাস

মানজুকিচ-রোনালদো নৈপুণ্যে ছুটছে জুভেন্টাস

ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো ও মারিও মানজুকিচের গোলে জয়ে ফিরল জুভেন্তাস। চ্যাম্পিয়ন্স লিগে আগের ম্যাচে হেরেছিল ইংলিশ ক্লাব ম্যানইউর বিপক্ষে। এবার সিরি আ’তে জয় পেল তারা। এসি মিলানকে তাদেরই মাঠে হারাল তুরিনের ক্লাব জুভেন্তাস।

রবিবার ম্যাচের শুরুটা দারুণ করে দিয়েছিলেন ক্রোয়েট তারকা মানজুকিচ। আর শেষের দিকে রোনালদো ব্যবধান বাড়িয়ে জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে ইতালির বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। সান সিরোয় ম্যাচটি ২-০ গোলে জিতে মাস্সিমিলিয়ানো আল্লেগ্রির দল।

রোববার চেনা দলের বিপক্ষে এ আর্জেন্টাইন পেনাল্টি মিস করে মিলানের সমর্থকদের হতাশ করেন। শেষ দিকে আবার দেখেছেন লাল কার্ড।

প্রতিপক্ষের মাঠে রোববার ম্যাচের অষ্টম মিনিটে এগিয়ে যায় জুভেন্টাস। বাঁ দিক থেকে আলেক্স সান্দ্রোস ক্রস ছোট ডি-বক্সের মুখে পেয়ে লাফিয়ে নেওয়া জোরালো হেডে কাছের পোস্ট দিয়ে বল ঠিকানায় পাঠান ক্রোয়াট ফরোয়ার্ড। বিরতির আগে সমতায় ফেরার দারুণ সুযোগ নষ্ট করেন হিগুয়েন। তার নেয়া নিচু স্পট কিকে বল গোলরক্ষক ভয়চেখ স্ট্যাসনির হাত ছুঁয়ে পোস্টে লাগে। জুভেন্টাসের ডি-বক্সে তাদের মরক্কোর ডিফেন্ডার বেনাতিয়ার হাতে বল লাগলে ভিএআর প্রযুক্তির সাহায্য নিয়ে পেনাল্টি দিয়েছিলেন রেফারি।

বিরতির পর ব্যবধান বাড়ানোর দারুণ সুযোগ পেয়েছিলেন পাওলো দিবালা। কিন্তু তার বাঁকানো ফ্রি-কিক পোস্টে লাগলে সে যাত্রায় বেঁচে যায় মিলান। তবে ৮১তম মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করে জয় প্রায় নিশ্চিত করে ফেলেন রোনালদো। জোয়াও কানসেলোর জোরালো শট গোলরক্ষক ঝাঁপিয়ে ঠেকালেও বিপদমুক্ত করতে পারেননি। আলগা বল ছোট ডি-বক্সের বাইরে ফাঁকায় পেয়ে ডান পায়ের শটে সেরি আয় নিজের অষ্টম গোলটি করেন পর্তুগিজ ফরোয়ার্ড। এর দুই মিনিট পরই  বেনাতিয়াকে পিছন থেকে ফাউল করে হলুদ কার্ড দেখেন হিগুয়েন। তাতে মেজাজ হারিয়ে রেফারির সঙ্গে তর্ক জুড়ে দেখেন লাল কার্ড। শেষ পর্যন্ত তাকে দুই দলের খেলোয়াড়রাই শান্ত করেন। ততক্ষণে কিন্তু জুভেন্টাসের জয় নিশ্চিত হয়ে গিয়েছে।

এ জয়ে ৩৪ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে আছে টানা সাতবারের চ্যাম্পিয়ন জুভেন্টাস। ২৮ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে নাপোলি। ৩ পয়েন্ট কম নিয়ে তৃতীয় স্থানে ইন্টার মিলান।

*রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন*
সম্পর্কিত সংবাদ
Leave a reply
ডেস্ক রিপোর্ট