মারাত্মক এই ব্যাধি থেকে এবার সহজেই মিলবে মুক্তি

মারাত্মক এই ব্যাধি থেকে এবার সহজেই মিলবে মুক্তি

জটিল ব্যাধির তালিকায় অনেক আগেই যুক্ত হয়েছে এইচআইভির নাম৷ গবেষণা চলছে বহুদিন ধরেই৷ মেলেনি কোন স্থায়ী সমাধান৷ তবে, এবার আশার আলো দেখেছেন বিজ্ঞানীরা৷ গবেষণায় পাওয়া গিয়েছে এক ধরণের ট্রেগ কোষের নাম, যা নিয়ন্ত্রণকারী লিম্ফোসাইটের একটি ধরণ৷ যেটি মাতৃগর্ভে শিশুদের রক্ষা করে এই মারণ ভাইরাস থেকে৷ বহু বিজ্ঞানীর কাছেই বিষয়টি কঠিন ধাঁধার মতোই দুর্বোধ্য৷ ধোঁয়াশা কাটেনি পুরোপুরিভাবে৷ তবে, সেই ক্ষীণ আলোতেই উঠে আসছে একাধিক নতুন তথ্য৷

মায়ের থেকে শিশুর শরীরে ভাইরাসটির সংক্রমণ অস্বাভাবিক নয়৷ সমাজে এইরকম উদারহণ রয়েছে ভুরিভুরি৷ তবে, এখন বিজ্ঞানকে কাজে লাগিয়ে ভাইরাসটিকে নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হবে৷ বাজারে এসেছে সেই রকমই ওষুধ৷ নতুনভাবে জীবনদান সম্ভব হবে ওষুধটির মাধ্যমে৷ ভাইরাসটিকে প্রতিরোধ করা ভীষণ প্রয়োজন৷ তবে, এখনও পর্যন্ত রোগটি নিয়ন্ত্রনের জন্য সেরকম কোন ভ্যাকসিন আবিষ্কার সম্ভব হয়নি৷

গবেষকরা দেখেছেন, এইচআইভি আক্রান্ত যে সব নবজাতকের শরীরে ট্রেগ লিম্ফোসাইটের মাত্রা বেশি তারা সময়ের সঙ্গে নিজে থেকেই ভাইরাসমুক্ত হয়েছেন৷ ইমিউন সিস্টেমের একটি গুরুত্বপূর্ণ কোশ হল লিম্ফোসাইট৷ যা অবাঞ্ছিত ভাইরাস এবং ব্যাকটেরিয়ার সঙ্গে লড়াই করে শরীরকে সুস্থ রাখে৷ তবে, অতিরিক্ত পরিমান লিম্ফোসাইট আবার স্বাভাবিক কোশের ক্ষতি করতে পারে৷

গবেষকরা নবজাতকদের রক্তের নমুনা পরীক্ষা করে দেখেছেন৷ জন্মের সময় ট্রেগ কোশের মাত্রা তুলনামুলক ভাবে বেশি অসংক্রামিত শিশুদের দেহে৷ অপরদিকে দেখা গিয়েছে অন্য এক ধরণের লিম্ফোসাইট অনেক বেশি সক্রিয় এইচআইভি আক্রান্ত শিশুদের মধ্যে৷ এইচআইভির মতো সংক্রামক ব্যাধির স্থায়ি সমাধানের জন্য এই ধরণের গবেষণা হতে পারে প্রথম পদক্ষেপ৷

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট