মার্কিন পদক্ষেপে কিউবার ক্ষেপণাস্ত্র সংকটের পুনরাবৃত্তি হতে পারে: রাশিয়া

মার্কিন পদক্ষেপে কিউবার ক্ষেপণাস্ত্র সংকটের পুনরাবৃত্তি হতে পারে: রাশিয়া

রাশিয়ার উপ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই রিয়াবকভ বলেছেন, আমেরিকা পূর্ব ইউরোপে স্বল্প বা মাঝারি পাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা মোতায়েন করলে তার ফলে কিউবার ক্ষেপণাস্ত্র সংকটের মতো ভয়াবহ পরিস্থিতির সৃষ্টি হতে পারে। আমেরিকা ও সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়নের মধ্যে শীতল যুদ্ধ চলার সবচেয়ে উত্তেজনাকর মুহূর্তে কিউবার ক্ষেপণাস্ত্র সংকট সৃষ্টি হয়েছিল।

রিয়াবকভ গতকাল (সোমবার) রাশিয়ার পার্লামেন্টে দেয়া বক্তৃতায় বলেন, “আমেরিকা যদি রাশিয়ার সীমান্তে এ ধরনের ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থা মোতায়েন করে তাহলে পরিস্থিতি শুধু জটিলই হবে না সেই সঙ্গে তা উত্তেজনাকে চূড়ান্ত অবস্থায় নিয়ে যাবে।”

সাম্প্রতিক সময়ে রাশিয়ার বিরুদ্ধে নিজের সামরিক শক্তি বৃদ্ধির লক্ষ্যে হোয়াইট হাউজ পূর্ব ইউরোপে স্বল্প বা মাঝারি পাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থা মোতায়েন করতে চায় বলে খবর বেরিয়েছে।

রিয়াবকভ আরো বলেন, “ওয়াশিংটন যদি তার পরিকল্পনা নিয়ে অগ্রসর হয় তাহলে আমরা শুধু ১৯৮০’র দশকের ক্ষেপণাস্ত্র সংকটের মতো নয় বরং (১৯৬২ সালের) কিউবার ক্ষেপণাস্ত্র সংকটের মতো জবাব দেব।”

১৯৬২ সালে কিউবার ক্ষেপণাস্ত্র সংকট শুরু হয়েছিল এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও তৎকালীন সোভিয়েত ইউনিয়নকে পরমাণু যুদ্ধের দ্বারপ্রান্তে পৌঁছে দিয়েছিল। ওই বছর তুরস্কে মার্কিন ক্ষেপণাস্ত্র মোতায়েনের জবাবে মস্কো ল্যাতিন আমেরিকার কমিউনিস্ট শাসনে থাকা দেশ কিউবায় ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র মোতায়েন করেছিল। তবে অনেক বাদানুবাদ শেষে দু’দেশ তাদের নিজ নিজ ক্ষেপণাস্ত্র সরিয়ে নিলে সে উত্তেজনার অবসান হয়।

*রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন*
সম্পর্কিত সংবাদ