মিলার বিরুদ্ধে মামলা করলেন সাবেক স্বামী

মিলার বিরুদ্ধে মামলা করলেন সাবেক স্বামী

সংগীতশিল্পী মিলার বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করেছেন তার সাবেক স্বামী বৈমানিক পারভেজ সানজারি। ঢাকার একটি আদালতে গত ২১ এপ্রিল নালিশি মামলা করেন তিনি। আদালত মামলাটি ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) সাইবার সিকিউরিটি ইউনিটকে তদন্ত করার নির্দেশ দিয়েছেন।

পারভেজ আনসারির অভিযোগ, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মিথ্যা প্রচার ও মানহানির মতো ঘটনা ঘটিয়েছেন এই সংগীতশিল্পী। মূলত ফেসবুকে প্রকাশিত একটি স্ট্যাটাস এবং গণমাধ্যমে তার বিরুদ্ধে মিথ্যাচার ও কুরুচিপূর্ণ কথার জেরে মামলাটি করেছেন বলে জানান সানজারি।

তিনি বলেন, ‘‘মিলা গত ১৬ এপ্রিল দুপুর ১টা ৫ মিনিটে তার ফেসবুক পেজ ও দুপুর ১টা ১০ মিনিটে তার নিজের ফেসবুক আইডিতে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন। সেখানে আমাকে, আমার পরিবার ও সহকর্মীদের নোংরা ভাষায় গালি দেওয়া হয়েছে। আমি এই বিষয়ে বিচার চেয়েছি। যে স্ট্যাটাসের জন্য মিলার বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে, সেখানে ‘জীবিত নুসরাত’ শিরোনাম ছিল। মিলা পরবর্তী সময়ে (১৬ এপ্রিল) সেটি সংশোধন করেন। ফেসবুক পেজের এডিট হিস্টোরিতে এখনও তার পূর্বের স্ট্যাটাসটি রয়েছে। সেখানে আদালতের পাবলিক প্রসিকিউশন, ইউএস বাংলার দুই কর্মকর্তাকেও গালমন্দ করা হয়েছে।’’

এদিকে ডিএমপির অতিরিক্ত উপকমিশনার (সাইবার সিকিউরিটি অ্যাক্টের সোশ্যাল মিডিয়া মনিটরিং, ওয়েব সাইট অ্যান্ড ইমেইল) আ ফ ম আল কিবরিয়া জানান, ডিজিটাল সিকিউরিটি অ্যাক্ট ২০১৮ এর ২৫ (১) ক, ২৫ (৩), ২৯ (১) ও ২৯ (২) ধারায় নতুন এ মামলাটি হয়েছে।

তিনি বলেন, ‘আমরা মামলার তদন্ত ভার পেয়েছি। তদন্ত চলছে। প্রক্রিয়া অনুয়ায়ী মিলাসহ সবাইকেই জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।’

সংগীতশিল্পী মিলা অনেক দিন থেকেই সংবাদমাধ্যমে অভিযোগ করছিলেন, তার স্বামী পারভেজ সানজারি তাকে শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন করছেন। ২০১৭ সালের অক্টোবরে মিলা বাদী হয়ে উত্তরা (পশ্চিম) থানায় মারধর ও যৌতুকের অভিযোগে তার স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা করেন। এরপর বিষয়টি আদালত ও কারাগার পর্যন্ত গড়ায়। চলতি বছরের ২৪ এপ্রিল বিকাল এক সংবাদ সম্মেলনে মিলা ফের সানজারি ও তার পরিবারের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনেন। এ সময় মিলার বাবা ও বোনসহ পরিবারের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

সাবেক স্বামী ও তার পরিবারের করা নির্যাতনের কথা তুলে ধরে মিলা বলেন, ‘আমাকে প্রায় বাসা থেকে বের করে দিতো। দুই বছর অপেক্ষা করেছি। ভেবেছি এর প্রতিকার পাবো। কিন্তু তা হয়নি।’

তিনি আরও জানান, পরিকল্পিতভাবে স্বামী বৈমানিক পারভেজ সানজারির বিরুদ্ধে করা মামলার ধারা পরিবর্তন করা হয়েছে। এর আগে মিলা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নির্যাতনের কথা লেখেন।

প্রসঙ্গত, ২০১৭ সালের মে মাসে পারিবারিকভাবে বৈমানিক পারভেজ সানজারির সঙ্গে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন মিলা ইসলাম। বিয়ের পর তিনি গানে হয়ে পড়েন অনিয়মিত। জড়িয়ে যান সংসার জীবনের দ্বন্দ্ব-বিবাদে। সবশেষে, সংসার জীবনের ইতি টানেন পপ গানের এই শিল্পী।

*রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন*
সম্পর্কিত সংবাদ
Leave a reply
ডেস্ক রিপোর্ট