#মি টু: ‘নওয়াজ হঠাৎ আমাকে জাপটে ধরেন’

#মি টু: ‘নওয়াজ হঠাৎ আমাকে জাপটে ধরেন’

বলিউডে তার অবস্থান এখন অনন্য উচ্চতায়। অভিনয়ের গুণে তিনি জয় করে নিয়েছেন কোটি মানুষের মন। নায়ক না হয়েও পাচ্ছেন আকাশচুম্বী পারিশ্রমিক। তার প্রতিটি চরিত্র দর্শককে মুগ্ধ করে। তিনি নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকি।

এই নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকির বিরুদ্ধেই উঠলো যৌন হেনস্তার অভিযোগ। প্রাক্তন মিস ইন্ডিয়া নীহারিকা সিং তার বিরুদ্ধে নির্যাতনের অভিযোগ তুলেছেন। নীহারিকা জানান, তার বাবা উত্তরপ্রদেশের লোক ছিলেন আর মা রাজস্থানের। তাদের বিয়ে সুখের ছিল না। পরিবারে প্রায়ই ঝগড়া লেগে থাকত। এর ফলে প্রেম নিয়ে নীহারিকার ধারণা স্পষ্ট ছিল না। কিন্তু এর মধ্যেও নিজের ক্যারিয়ার থেকে সরে যাননি নীহারিকা।

শোবিজে কাজের সূত্রেই নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকির সঙ্গে নীহারিকার পরিচয়। একদিন নওয়াজের সারা রাত শুটিং ছিল। সকালে তিনি নীহারিকাকে মেসেজ করেন, তিনি তার বাড়ির কাছাকাছিই আছেন। স্বভাবতই নীহারিকা তাকে বাড়িতে আসতে বলেন। এরপর যেই না তিনি দরজা খুলেছেন, নওয়াজ তাকে জাপটে ধরেন। অনেক চেষ্টা করেও সেই বাঁধন ছাড়াতে পারেননি নীহারিকা। একসময় তিনি প্রায় বাধ্য হয়েই হাল ছেড়ে দেন। নওয়াজ তখন তাকে বলেছিলেন, কোনও মিস ইন্ডিয়া বা অভিনেত্রীকে স্ত্রী হিসেবে পাওয়া তার কাছে স্বপ্নের।

নীহারিকা বলেন, ‘আমি জানতাম না এই সম্পর্ককে কী নাম দেয়া যায়। কিন্তু এটা আমার সঙ্গে হয়েছিল।’

শুধু নওয়াজউদ্দিনই নয়, নীহারিকা সিং অভিযোগ করেছেন ভূষণ কুমারের বিরুদ্ধেও। তিনি জানান, একবার ভূষণ কুমার তাকে ‘আ নিউ লাভ ইস্টোরি’ নামে একটি ছবির অফার দেন। পারিশ্রমিক হিসেবে ৫০০ টাকাও পাঠান। কিন্তু তারপর নীহারিকার কাছে মেসেজ আসে, ‘আমি তোমার ব্যাপারে আরও বেশি জানতে চাই।’

এই ইঙ্গিত ধরতে পেরেছিলেন নীহারিকা। তিনি উত্তর দেন, ‘নিশ্চয়ই। ডবল ডেট করা যাক। আপনি আপনার স্ত্রীকে নিয়ে আসুন, আমি আমার বয়ফ্রেন্ডকে নিয়ে যাব।’ এরপর আর তার সঙ্গে ভুষণ কুমার যোগাযোগ করেননি বলে জানান নীহারিকা।

প্রসঙ্গত, যৌন হেনস্তার অভিযোগে বলিউডে চলছে #মি টু অভিযান। অভিনেত্রী ও নারী কলাকুশলীরা মুখ খুলছেন তাদের সঙ্গে ঘটে যাওয়া আপত্তিকর ঘটনাগুলো নিয়ে। আর অভিযুক্ত হচ্ছেন বলিউডের অনেক নামজাদা অভিনেতা, প্রযোজক ও পরিচালক। এই প্রতিবাদের শুরু করেছিলেন তনুশ্রী দত্ত। খ্যাতিমান অভিনেতা নানা পাটেকরের বিরুদ্ধে তিনি বিস্ফোরক অভিযোগ তুলে গোটা বলিউডে তোলপাড় করে দেন।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট