‘যতটুকু ডিসিপ্লিন থাকা উচিৎ আমরা ততটুকু ডিসিপ্লিন ছিলাম না আমাদের ব্যাটিংয়ে’

‘যতটুকু ডিসিপ্লিন থাকা উচিৎ আমরা ততটুকু ডিসিপ্লিন ছিলাম না আমাদের ব্যাটিংয়ে’

নিজেদের সামর্থ্যর বিচারে দুর্বল জিম্বাবুয়ের সাথে ঘরের মাঠে একদিনের ক্রিকেটে রাজত্ব দেখিয়েই ৩-০ ব্যবধানে সিরিজ জয় বাংলাদেশ দলের। তবে রঙিন থেকে সাদা পোশাকে এসেই হারিয়ে বসলো খেই। ব্যাটিংয়ে আবার ফুটে উঠলো এই ফরম্যাটের চিরাচরিত সেই রূপ। ম্যাচটা খোয়াতে হলো ১৫১ রানে। জিম্বাবুয়ের মত দলের সাথে যেটা লজ্জারই বটে! দলের ব্যাটিংয়ের এমন দৈন্য দশার সঙ্গা নেই খোদ দলীয় অধিনায়কের কণ্ঠে। মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ বারবারই বলেছেন, এই দলটাতে ‘ডিসিপ্লিনের’ অভাব।

টেস্ট ক্রিকেটে নিজেদেরকে প্রায় হারাতে বসেছে জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট দল। শেষ টেস্ট জয় সেটাও পাঁচ বছর আগে। তবে সেই জিম্বাবুয়ে নিজেদেরকে ফিরে পাওয়ার মিশনে শ্রেষ্ঠ মঞ্চ হিসাবে বেছে নিল কীনা টাইগারদেরকেই। তবে এই জয়টা যতটা-না তাদের অর্জন, তার থেকে ঢের বেশি বিসর্জন বাংলাদেশের। উইকেটে নেমেই যেন ব্যাটসম্যানরা যোগ দিয়েছেন আত্মাহুতির মিছিলে। দায়িত্ব নিতে পারেননি কেউই।

ম্যাচ শেষ সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হলেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। দুর্বল জিম্বাবুয়ের সাথে এমন খামখেয়ালী ব্যাটিংয়ের দরুন ম্যাচ হারার পর অধিনায়কের বলার থাকেনা কিছুই। তবে না চাইলেও যে নিয়মরক্ষার খাতিরে বলতে হয় অনেক কিছুই। বললেন রিয়ার। ব্যর্থতার সঙ্গা দিতে গিয়ে জানালেন, ‘এরকম ব্যাটিংয়ে আসলে ব্যাখ্যা দেওয়া খুবই কঠিন। শুধু একটা জিনিষই বলতে পারি, আসলে টেস্ট ক্রিকেট খেলতে গেলে যতটুকু ডিসিপ্লিন থাকা উচিৎ আমরা ততটুকু ডিসিপ্লিন ছিলাম না আমাদের ব্যাটিংয়ের ক্ষেত্রে। উইকেট খুব ভাল ছিল। আজ হয়তোবা এক-দুইটা বল একটু টার্ন হয়েছে, তবে আমার কাছে উইকেট খুবই ভাল মনে হয়েছে।’

তিনি আবারও টেনেছেন সেই ডিসিপ্লিনের কথা। জনালেন, ‘ডিসিপ্লিনের ইস্যুটা একটু দেখতে হবে আমাদের। আর নিজেদের উপর বিশ্বাসটা একটু বাড়াতে হবে। এই জিনিষগুলা নিয়েই কাজ করতে হবে আসলে। বিগত কয়েকটা টেস্ট আমরা খুবই বাজে ভাবে ব্যর্থ হয়েছি। সুতরাং এই জিনিষগুলা নিয়ে আমাদের আরো একটু চিন্তা করতে হবে। এবং একটা উপায় বের করতে হবে।’

এদিন অধিনায়কে প্রশ্ন করা হয়, শেষ দিনে দলের যে গেম প্লান ছিল তার কতটুকু প্রয়োগ করতে পেরেছে দল? এই প্রসঙ্গে রিয়াদ বলেন, ‘আমি বলবো আসলে কোনো প্লানই সাকসেসফুল হয়নি। গতকাল যখন আমাদের টার্গেটটা সেট হয়, ৩২১ রানের। তখন আমরা মাঠে আলোচনা করেছিলাম আমরা পজিটিভ থাকবো এবং ম্যাচ জেতার জন্যই খেলবে। উইকেট যেমন ছিল বেশ ভালোই ছিল। উইকেটের কোন দোষ বা এক্সকিউজ দেওয়া উচিৎ হবে না, বা দেওয়া ঠিকও না।’

তবে এই দলটার ঘুরে দাঁড়ানোর সামর্থ্য আছে সেই বিশ্বাস রেখেই রিয়াদ যোগ করেছেন ‘তবে আমি এইটা মনে করি যে আমাদের যথেষ্ট সামর্থ্য আছে। নিজেদের ব্যাটিংটা নিয়ে একটু চিন্তা করলেই আমরা ঘুরে দাঁড়াতে পারব। এই বিশ্বাসটা আমাদের আছে।’

*রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন*
সম্পর্কিত সংবাদ
Leave a reply
ডেস্ক রিপোর্ট