রাজকীয় উপাধি ছাড়লেন হ্যারি-মেগান

রাজকীয় উপাধি ছাড়লেন হ্যারি-মেগান

ব্রিটেনের দ্য ডিউক অব সাসেক্স প্রিন্স হ্যারি ও তার স্ত্রী দ্য ডাচেস অব সাসেক্স মেগান মার্কেল এখন থেকে রাজকীয় পদবি রয়্যাল হাইনেস ব্যবহার করবেন না। রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথ এ বিষয়ে সম্মতি দিয়েছেন।

এছাড়া, হ্যারি ও মেগানের ফ্রগমোর কটেজ সংস্কারে যে ২৫ লাখ পাউন্ড খরচ হয়েছে তাও তারা পরিশোধ করে দেবেন। ব্রিটেনে অবস্থানকালে তারা এখানে থাকবেন এবং রানীর প্রতিনিধিত্ব করবেন না। বাকিংহাম প্রাসাদ গতকাল (শনিবার) এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

এর আগে, গত ৮ জানুয়ারি সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ইনস্টাগ্রামে যৌথ বিবৃতিতে হ্যারি ও মেগান জানিয়েছিলেন, অর্থনৈতিকভাবে স্বাবলম্বী হওয়ার জন্য তারা রাজকীয় দায়িত্ব থেকে অবসর নিতে চান। এরপর রানীর বিশেষ প্রতিনিধি, হ্যারি ও রাজপরিবারের সিনিয়র সদস্যরা এই চুক্তিতে পৌঁছান।

রাজপ্রাসাদ সূত্র আরো জানিয়েছে, হ্যারি ও মেগান তাদের সন্তান আর্চিকে নিয়ে বেশিরভাগ সময় উত্তর আমেরিকাতে অবস্থান করবেন। অর্থ উপার্জানের জন্য তারা নিজেদের মতো করে কাজ করতে পারবেন। তবে রানীর সম্মানহানি হয় এমন কোনো কিছুর সঙ্গে জড়িত হবেন না। চলতি বসন্তের শেষেই এই আদেশ কার্যকর হবে। তবে কেন প্রিন্স হ্যারি এভাবে হঠাৎ করেই রাজপরিবার ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিলেন তা নিয়ে উঠেছে নানা প্রশ্ন। অনেকে জানতে চাইছেন- কেন প্রিন্স হ্যারি অর্থ উপার্জন করে স্বাবলম্বী হওয়ার কথা বলছেন? অনেকে একে গৃহদাহ বলে মনে করছেন। তবে এ ঘটনা যে ব্রিটিশ রাজপরিবারের জন্য বড় ধাক্কা তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

*রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন*
সম্পর্কিত সংবাদ
Leave a reply
ডেস্ক রিপোর্ট