রাজনৈতিক সংকট নিরসনে সংলাপের প্রস্তাব হংকংয়ের প্রধান নির্বাহীর

রাজনৈতিক সংকট নিরসনে সংলাপের প্রস্তাব হংকংয়ের প্রধান নির্বাহীর

সম্প্রতি বিক্ষোভে উত্তাল গোটা হংকং। নিজেদের অধিকার আদায়ে এখনো হংকংয়ের পথে লাখ লাখ গণতন্ত্রকামী মানুষ। যাদের অংশগ্রহণে এ বিক্ষোভ মোড় নিয়েছে স্বাধীনতার আন্দোলনে। নিজেদের আধা-স্বায়ত্বশাসিত অঞ্চলে চলমান গণতন্ত্রকামীদের এ আন্দোলন ঠেকাতে এখন পর্যন্ত নানা পদক্ষেপ নিয়েছে চীন, দিয়েছে হুঁশিয়ারিও। এদিকে, হংকংয়ের প্রধান নির্বাহী ক্যারি ল্যাম বলেছেন, চলমান রাজনৈতিক সংকট নিরসনে সংলাপ ও পারস্পরিক শ্রদ্ধাবোধের কোনো বিকল্প নেই।

মঙ্গলবার দেওয়া এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, সাম্প্রতিক সময়ে সেখানে যেভাবে শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভের মাধ্যমে আন্দোলনকারীরা তাদের দাবি আদায়ের কথা জানিয়েছেন, তাতে এটা বলা যায় যে, দ্রুত স্বায়ত্তশাসিত এ অঞ্চলটিতে শান্তি-শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনা সম্ভব। তিনি বলেন, আমাদের মধ্যে পারস্পরিক শ্রদ্ধাবোধ ও আন্তরিকতা থাকলেই এই অবস্থা থেকে আমরা মুক্তি পেতে পারি।

এদিকে, দিনকে দিন আন্দোলনকারীর সংখ্যা আরও বাড়ছে। এর মধ্যেই এ আন্দোলন নিয়ে চলছে নানা ষড়যন্ত্রও। আন্দোলন নিয়ে ‘ভুল তথ্য’ ছড়ানো হচ্ছে বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। হংকং আন্দোলন নিয়ে ‘ভুল তথ্য’ ছড়ানোর অভিযোগে চীনা নাগরিকদের ৯৩৬টি অ্যাকাউন্ট বন্ধও করে দিয়েছে টুইটার কর্তৃপক্ষ। থেমে নেই ফেসবুক কর্তৃপক্ষও। তারাও বন্ধ করেছে ফেসবুকের সাতটি পেজ, তিনটি গ্রুপ ও পাঁচটি অ্যাকাউন্ট।

মঙ্গলবার দেওয়া বিবৃতিতে ক্যারি ল্যাম আরো বলেন, আমি দ্ব্যর্থহীন কণ্ঠে এটা বলতে চাই যে- সংকট সমাধানে সংলাপই একমাত্র পথ হতে পারে। সে কারণে বর্তমান অবস্থা থেকে পরিত্রাণ পেতে আমি সকলের কাছে সংলাপের আহ্বান জানাচ্ছি। তিনি বলেন, সে লক্ষ্যে সুনির্দিষ্ট প্লাটফর্ম তৈরিতে আমরা ইতিমধ্যে কাজ শুরু করেছি। আমার দৃঢ় বিশ্বাস এর মাধ্যমে আমরা অবশ্যই একটা সন্তোষজনক অবস্থায় পৌঁছাতে পারব। আমি একান্তভাবে বিশ্বাস করি, সহিংসতা দূরে রেখে এখনো সমাজে শান্তি ফিরিয়ে আনা সম্ভব।

*রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন*
সম্পর্কিত সংবাদ
Leave a reply
ডেস্ক রিপোর্ট