ডার্বিতে রিয়ালকে রুখে দিল অ্যাটলেটিকো

ডার্বিতে রিয়ালকে রুখে দিল অ্যাটলেটিকো

বার্সেলোনার সঙ্গে ব্যবধান কমাতে জয়টা গুরুত্বপূর্ণ ছিল রিয়াল মাদ্রিদ ও অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের। কিন্তু এমন ম্যাচে কেউই জিততে পারেনি। রিয়ালের ঘরের মাঠ বার্নাব্যুতে মাদ্রিদ ডার্বিতে ১-১ গোলে ড্র করেছে দুদল। স্বাগতিকদের হয়ে গোল করেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। আর অ্যাটলেটিকোর হয়ে গ্রিজম্যান।

লা লিগার চলতি মৌসুমে প্রথম ডার্বিতে অ্যাটলেটিকোর মাঠে গোলশূন্য ড্র করেছিল রিয়াল। ঘরের মাঠে সবশেষ চারটি ডার্বিতেই জিততে পারেনি তারা। এরমধ্যে তিনটিতে হার ও একটিতে ড্র। এবারও ড্র করল গ্যালাকটিকোরা। যা লা লিগার ইতিহাসে নগরপ্রতিদ্বন্দ্বীদের বিপক্ষে সবচেয়ে খারাপ ফল।

জয়-পরাজয়ের মোট হিসাবে এগিয়ে থেকেই মাঠে নেমেছিল রিয়াল। লা লিগায় অন্য যেকোনো দলের চেয়ে অ্যাটলেটিকোর বিপক্ষে বেশি ম্যাচ জেতার রেকর্ড শুধু রিয়ালেরই। এই ম্যাচের আগে ১৬১ ম্যাচের মধ্যে জয় পেয়েছে ৮৬টিতে। আর সব প্রতিযোগিতা মিলে ২১৯ ডার্বিতে ৫০ শতাংশ ম্যাচ জিতেছে গ্যালাকটিকোরা। অর্থাৎ, ১০৯টি ম্যাচে জয়।

৭ মিনিটে টনি ক্রসের নিচু শটে মার্সেলো লক্ষ্যে বল পাঠাতে চেয়েছিলেন। কিন্তু ব্রাজিলিয়ানের সামনে বাধা হয়ে দাঁড়ান অ্যাতলেতিকোর ডিফেন্ডার সাভিচ। ১০ মিনিটে ক্রসের কর্নার থেকে গ্যারেথ বেলের হেড ব্যাকপোস্টে যায়। কিন্তু বল রোনালদোর হাঁটুতে লেগে লক্ষ্যভ্রষ্ট হয় ওবলাক বাধা দেওয়ায়।

ass

আবারও গোল করলেন রোনালদোদুই মিনিট পর হুয়ানফ্রান ডিবক্সের মধ্যে ক্রসকে ফাউল করলে রিয়ালের পেনাল্টির আবেদনে সাড়া দেননি রেফারি। ওই মুহূর্তে মার্কো আসেনসিওর শট ক্রসবারে লেগে মাঠের বাইরে চলে যায়। ২০ মিনিটে রোনালদোর বাঁপায়ের শট সরাসরি চলে যায় অ্যাতলেতিকো গোলরক্ষকের হাতে। ওবলাক ২৮ মিনিটে আরেকবার রুখে দেয় রিয়ালকে, এবার ব্যর্থ হন রাফায়েল ভারানে। অ্যাতলেতিকো সুবর্ণ সুযোগ পায় দুই মিনিট পরই, দিয়েগো কস্তা একা গোলরক্ষককে পেয়েও গোলপোস্টের বাইরে দিয়ে বল মারেন।

বিরতির তিন মিনিট আগে দুর্ভাগ্য এগিয়ে যেতে দেয়নি রিয়ালকে। মার্সেলোর শট গোলবারে লেগে লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। তবে দ্বিতীয়ার্ধে সান্তিয়াগো বার্নাব্যুর দর্শকরা বুনো উল্লাসে ফেটে পড়ে। তাদের উচ্ছ্বাসে ভাসান রোনালদো। ৫৩ মিনিটে বাঁপ্রান্ত থেকে বেলের ভাসিয়ে দেওয়া বলটি চমৎকার ভলিতে কোনাকুনি শটে জালে জড়ান পর্তুগিজ উইঙ্গার। এই নিয়ে শেষ ১০ ম্যাচে ১৯ গোল করলেন রোনালদো। কিন্তু হতাশা নিয়ে ৬৪ মিনিটে তাকে মাঠ ছাড়তে হয় করিম বেনজিমাকে জায়গা করে দিয়ে।

গ্রিয়েজমানের গোলে রিয়াল আবারও হোঁচট খেলোকারণ রোনালদোর গোলের উদযাপনের চার মিনিট পর আনন্দটা মাটি করে দেন আন্তোনিও গ্রিয়েজমান। ৫৭ মিনিটে বক্সের মধ্যে ভিতোলোকে পাস দেন তিনি। দারুণ কৌশলে এগিয়ে যান ভিতোলো, তবে নাভাস সামনে দাঁড়ানোয় তিনি ফিরতি পাস দেন গ্রিয়েজমানকে। এবার ফরাসি ফরোয়ার্ড নিজে লক্ষ্যভেদ করেন। ২ মিনিট পর এগিয়ে যাওয়ার সুযোগ পেয়েছিল দিয়েগো সিমিওনির শিষ্যরা। কিন্তু সাউলের ক্রস থেকে কোকের হাফ-ভলি দারুণ চেষ্টায় রুখে দেন রিয়াল গোলরক্ষক নাভাস। ইনজুরি সময়ের দ্বিতীয় মিনিটে সের্হিয়ো রামোসের ফ্রি কিক ঠেকিয়ে দেন ওবলাক।

এই ড্রয়ের পর শীর্ষে থাকা বার্সেলোনার সঙ্গে অ্যাতলেতিকোর ব্যবধান দাঁড়ালো ১১ পয়েন্টে। ৩১ ম্যাচে ৭৯ পয়েন্ট নিয়ে সবার উপরে কাতালানরা। আর ৬৮ পয়েন্ট নিয়ে দুই নম্বরে অ্যাতলেতিকো। নগর প্রতিদ্বন্দ্বীর চেয়ে চার পয়েন্টে পিছিয়ে রিয়াল (৬৪)। ইএসপিএনএফসি

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট