রিয়ালকে হারিয়ে সুপার কাপ চ্যাম্পিয়ন অ্যাতলেতিকো(ভিডিও)

রিয়ালকে হারিয়ে সুপার কাপ চ্যাম্পিয়ন অ্যাতলেতিকো(ভিডিও)

রিয়াল মাদ্রিদকে হারিয়ে শিরোপা জয়ের আনন্দে মৌসুম শুরু করলো দিয়েগো সিমেওনের দল।এস্তোনিয়ার তালিনে বুধবার রাতে ম্যাচটি ৪-২ গোলে জিতেছে আতলেতিকো।দিয়েগো কস্তার করা উয়েফা সুপার কাপের ইতিহাসে দ্রুততম গোলে শুরুটা দুর্দান্ত ছিল আতলেতিকো মাদ্রিদের। অতিরিক্ত সময়ে গড়ানো ম্যাচের শেষটাও দারুণ হলো তাদের।  শুরুতে পিছিয়ে পড়ার পর করিম বেনজেমা ও সের্হিও রামোসের গোলে ঘুরে দাঁড়িয়েছিল রিয়াল।

টানা চার বছর চ্যাম্পিয়নস লিগে নগর প্রতিদ্বন্দ্বীর কাছে হারতে হয়েছে অ্যাতলেতিকোকে। ২০১৪ ও ২০১৬ সালের ফাইনালে রিয়াল জিতে হাতে নেয় ট্রফি। ২০১৫ ও ২০১৭ সালেও নকআউটে তাদের কাছে হেরে বিদায় নিতে হয় সিমিওনির শিষ্যদের। এবার সেই হারের বৃত্ত থেকে বেরিয়ে ২০১০ ও ২০১২ সালের পর সুপার কাপ জিতলো অ্যাতলেতিকো।

জিনেদিন জিদান কোচের দায়িত্ব ছাড়ার পর ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো চলে গেছেন জুভেন্টাসে। চ্যাম্পিয়নস লিগে হ্যাটট্রিক শিরোপা এনে দেওয়া কোচ ও ফরোয়ার্ডের বিদায়ের পর রিয়ালের অগ্নিপরীক্ষা ছিল সুপার কাপে। রোনালদোকে হারানোর প্রভাব ভালোভাবে টের পেয়েছে তারা নগর প্রতিদ্বন্দ্বীর কাছে হেরে।

মিনিটের মধ্যেই অ্যাতলেতিকোকে এগিয়ে দিলেন কস্তাচ্যাম্পিয়নস লিগ জয়ীদের বিপক্ষে ইউরোপা লিগের চ্যাম্পিয়নরা মাত্র ৪৯ সেকেন্ডের গোলে দারুণ শুরু করে। লম্বা পাস ধরে আড়াআড়ি শটে জালে বল জড়ান ডিয়েগো কস্তা।

সর্বকালের শীর্ষ গোলদাতাকে ছাড়া প্রথম প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক ম্যাচে কঠিন পরীক্ষায় হার না মানা লড়াই করে রিয়াল। যার পুরস্কার তারা পায় ২৭তম মিনিটে গ্যারেথ বেলের ক্রস থেকে করিম বেনজিমার গোলে।

ওখানেই থামেনি রিয়াল। ৬৯ মিনিটে অ্যাতলেতিকোর ডিবক্সে হুয়ানফ্রানের হাতে বল লাগলে পেনাল্টি পায় তারা। তাতে সের্হিয়ো রামোস এগিয়ে দেন ইউরোপ চ্যাম্পিয়নদের। রিয়ালের দাপটে আবারও হারের শঙ্কায় পড়ে অ্যাতলেতিকো।

ম্যাচ জয়ের নায়ক কস্তাকিন্তু ডিয়েগো সিমিওনির দল দাঁত কামড়ে লড়াই করে গেছে। যাতে ৭৯ মিনিটে সমতা ফেরায় অ্যাতলেতিকো। গোলমুখের অনেক কাছ থেকে লক্ষ্যভেদ করেন কস্তা।

যোগ করা সময়ে রিয়াল ম্যাচ জেতানো গোল পেতে পারতো। কিন্তু বেলের ক্রস নিয়ন্ত্রণ করতে গিয়ে পিছলে পড়ে যান মার্সেলো। এতে অতিরিক্ত সময়ে গড়ায় দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীর লড়াই।

অতিরিক্ত সময়ের শুরুতেও ব্যাকফুটে ছিল অ্যাতলেতিকো। কিন্তু প্রতিপক্ষকে চাপে রাখতে মরিয়া ছিল তারা। রাফায়েল ভারানে পা থেকে বল হারালে থমাস পার্টের ক্রস থেকে ৯৮ মিনিটে অসাধারণ ভলিতে ৩-২ করেন সাউল নিগুয়েস। আর ৬ মিনিট পর কোকের গোলে অ্যাতলেতিকো নিশ্চিত করে তাদের তৃতীয় সুপার কাপ শিরোপা।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট