শারীরিক সুস্থতায় প্রতিদিন পেস্তা বাদাম

শারীরিক সুস্থতায় প্রতিদিন পেস্তা বাদাম

১৮৫৪ সালে অস্ট্রেলিয়া এবং আমেরিকার কিছু অংশে পেস্তা বাদামের গাছ সর্বপ্রথম আবিষ্কৃত হয়। এরপর থেকে ধীরে ধীরে বাড়তে থাকে এর জনপ্রিয়তা। অত্যন্ত সুস্বাদু এই বাদামটি ব্যবহার হতে থাকে স্ন্যাকস হিসেবে। এরপর নানা ধরণের বেকিং এবং খাবারে ব্যবহার হয় পেস্তা বাদাম। কিন্তু পেস্তা বাদামের গুনাগুন সম্পর্কে জানেন কি? আসুন জেনে নেই।

১. হৃদপিণ্ডের সুস্থতায় পেস্তা বাদাম: পেস্তা বাদাম এইচডিএল অর্থাৎ হাই ডেনসিটি লিপ্রোপ্রোটিনের মাত্রা বাড়ায় এবং খারাপ কলেস্টোরল এলডিএল অর্থাৎ লো ডেনসিটি লিপ্রোপ্রোটিনের মাত্রা কমায়। এতে করে সুস্থ থাকে হৃদপিণ্ড।

২. রক্তের হিমোগ্লোবিনের মাত্রা বাড়ায়: পেস্তা বাদামের ভিটামিন বি৬ উপাদান পাইরিডক্সিন রক্তের হিমোগ্লোবিনের মাত্রা বাড়াতে সহায়তা করে। এতে করে রক্তস্বল্পতা রোগ থেকে রক্ষা পাওয়া যায়।

৩. ডায়বেটিসের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করে: নিয়মিত পেস্তা বাদাম খেলে ডায়বেটিস রোগীদের রক্তের সুগারের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে থাকে। এবং পেস্তা বাদামের মিনারেল ফসফরাস প্রোটিনের অ্যামিনো অ্যাসিড ভাঙতে সহায়তা করে।

৪. দৃষ্টি শক্তি উন্নত করে: পেস্তা বাদামে রয়েছে লুটেন এবং জিয়াক্সান্থিন নামক অ্যান্টি অক্সিডেন্ট যারা ক্ষতিগ্রস্থ দৃষ্টিশক্তি উন্নত করতে সহায়তা করে থাকে। এই উপাদান দুটি মলিকিউলার ডিগ্রেডেশনের হাত থেকেও রক্ষা করে।

৫. নার্ভের কর্মক্ষমতা বজায় রাখে:পেস্তা বাদামের ভিটামিন বি৬ নার্ভের ফাইবার উন্নত করতে সহায়তা করে। এর নিউট্রিয়েন্টস মস্তিষ্কে এনডোরফিন, মেলাটোনিন, সেরেটোনিন এবং গামা অ্যামিনোবিউট্রিক অ্যাসিড উৎপাদনে সহায়তা করে যা নার্ভ সিস্টেম উন্নত করে।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট