শেষ ওভারের রুদ্ধশ্বাসে বেঙ্গালুরুর জয়

শেষ ওভারের রুদ্ধশ্বাসে বেঙ্গালুরুর জয়

শেষ ওভারে জয়ের জন্য কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের প্রয়োজন ছিল ১৭ রান। সেখানে মার্কাস স্টোনিস-ফারহান বিহারডিয়েন মিলে তুললেন ১৫ রান। আর রয়েল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরু ১ রানে জিতে আইপিএলে টিকে রইলো।

এই পরাজয়ে পাঞ্জাবের প্লেঅফে খেলার আশা একরকম শেষই হয়ে গেল। ৯ ম্যাচে ৮ পয়েন্ট নিয়ে পয়েন্ট টেবিলে ছয় নম্বরে রয়েছে বেঙ্গালুরু। তার চেয়ে এক ম্যাচ বেশি খেলে ৬ পয়েন্ট পাওয়া পাঞ্জাব রয়েছে পয়েন্ট টেবিলের তলানিতে।

বেঙ্গালুরুর ১৭৫ রান জবাবে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা দারুণ করেছিলেন দুই ওপেনার হাশিম আমলা ও অধিনায়ক মুরালি বিজয়।

প্রথমবার আইপিএল খেলা আমলা ২০ বলে ২১ রান করে ফিরে গেলেও বিজয় পাঞ্জাবকে জয়ের রাস্তাতেই রেখেছিলেন। ৫৭ বলে ১২ চার আর এক ছয়ে ৮৯ রানের দুর্দান্ত ইনিংস খেলেন পাঞ্জাব অধিনায়ক। বিজয় আউট হওয়ার পরও জয়ের সুযোগ ছিল প্রীতি জিনতার দলের সামনে। সেই সুযোগ কাজে লাগানোরও চেষ্টা করেছিলেন স্টোনিস। কিন্তু শেষ রক্ষা হয় নি। হারতে হয়েছে ১ রানে। ২২ রানে ২ উইকেট নিয়ে বেঙ্গালুরুর সবচেয়ে সফল বোলার শেন ওয়াটসন।

এর আগে টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৬ উইকেট রয়েল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরু তোলে ১৭৫ রান। বিরাট কোহলি ফিরে গেছেন ২১ বলে ২০ রান করে। অন্যপ্রান্তে কোহলির কাজটাই করে দিয়েছেন লোকেশ রাহুল ২৫ বলে ছয় চার, এক ছয়ে ৪২ রানের ইনিংস খেলে।

তবে বেঙ্গালুরুর ১৭৫ রানে বড় ভুমিকা দক্ষিণ আফ্রিকার বিরল প্রজাতির ক্রিকেটার এবি ডি ভিলিয়ার্সের। ৩৫ বলে পাঁচ চার, দুই ছয়ে তার ব্যাট থেকে এসেছে ৬৪ রান। মাঝে শচীন বেবি করেছেন ২৯ বলে ৩৩। আগের ম্যাচের মতো ডাগ আউটে বসে সতীর্থদের খেলা দেখেছেন ক্রিস গেইল।

উলেখ্য, চার  ওভারে ২২  রান  দিয়ে ২ উইকেট নেওয়ায় ম্যাচসেরার পুরস্কার জিতেছেন ওয়াটসন।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট