শেষ ওভারের রোমাঞ্চে জিতলো মাশরাফির রংপুর

শেষ ওভারের রোমাঞ্চে জিতলো মাশরাফির রংপুর

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) ষষ্ঠ আসরে খুলনা টাইটানসের শুরুটা হলো হারে। ১৭০ রানের লক্ষ্য পেয়ে দারুণ শুরু হয়েছিল তাদের। কিন্তু ডেথ ওভারে ব্যাটিং ব্যর্থতায় গতবারের চ্যাম্পিয়ন রংপুর রাইডার্সের কাছে ৮ রানে হেরেছে মাহমুদউল্লাহরা। চিটাগং ভাইকিংসের কাছে হেরে শুরু করা রংপুর দ্বিতীয় ম্যাচে পেল জয়ের দেখা।

মিরপুরে দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে ৮ রানে জিতেছে বর্তমান বিপিএল চ্যাম্পিয়ন রংপুর। আগের ম্যাচে হতাশাজনক পারফরম্যান্স দেখিয়ে হেরেছিল দলটি। মাশরাফি বিন মর্তুজাদের ৩ উইকেটে ১৬৯ রানের জবাবে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের খুলনার ইনিংস থেমেছে ৫ উইকেটে ১৬১ রানে।

লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে পল স্টার্লিং ও জুনায়েদ সিদ্দিকী গড়েছিলেন ৯০ রানের বড় জুটি। দেখেশুনে শুরু করার পর ধীরে ধীরে খোলস ছেড়ে বের হন দুজনে। শফিউল ইসলামের করা ইনিংসের পঞ্চম ওভারে ১৯ ও সোহাগ গাজীর পরের ওভারে ১২ রান তোলেন তারা। তাতে পাওয়ার প্লের ৬ ওভার শেষে খুলনার স্কোর দাঁড়ায় বিনা উইকেটে ৬১ রান।

খুলনার উদ্বোধনী জুটি ভাঙে ১২তম ওভারের প্রথম বলে। ততক্ষণে স্কোরবোর্ডে উঠে গিয়েছিল ৯০ রান। ৩০ বলে ৩৩ রান করা বাঁহাতি জুনায়েদকে ফেরান ইংলিশ অলরাউন্ডার বেনি হাওয়েল। উড়িয়ে মারতে গিয়ে ডিপ মিডউইকেটে শফিউলের হাতে ক্যাচ দেন তিনি।

পরের ২ ওভারে ২ উইকেট হারায় খুলনা। উইকেটে থিতু হওয়ার আগেই বিদায় নেন নাজমুল হোসেন শান্ত। শফিউলের বলে বোল্ড হন তিনি। হাফসেঞ্চুরি হাঁকিয়ে ফিরে যান আইরিশ ব্যাটার স্টার্লিংও। ৪৬ বলে ৬১ রান করে মাশরাফির শিকার হন তিনি। তার ইনিংসে ছিল ৮ চার ও ১ ছয়।

চতুর্থ উইকেটে জোট বেঁধেছিলেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ও আরিফুল হক। তবে তাদের ৩২ রানের জুটিতে রান আসে ঢিমেতালে। তিন বলের ব্যবধানে সাজঘরের পথ ধরেন দুজনেই। ১৮তম ওভারে অসাধারণ বোলিং করা ফরহাদ রেজা মাত্র ৫ রান দেওয়ার পাশাপাশি তুলে নেন মাহমুদউল্লাহর উইকেট। ১৭ বলে ৪ চারে ২৪ রান করে খুলনা দলনেতা।

পরের ওভারের প্রথম বলেই ফেরেন আরিফুল। এই হার্ডহিটার নিজের নামের প্রতি মোটেই সুবিচার করতে পারেননি। ১৩ বলে খেলে ব্যক্তিগত ১২ রানে শফিউলের দ্বিতীয় শিকারে পরিণত হন তিনি। ফলে শেষ ২ ওভারে ৩০ রানের জয়ের সমীকরণ আর মেলানো হয়নি খুলনার। তাদের ইনিংস থামে ৫ উইকেটে ১৬১ রানে।

এর আগে টসে হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে ৩ উইকেটে ১৬৯ রান তুলেছিল রংপুর রাইডার্স। শুরুতে রানের চাকা সচল রাখতে হিমশিম খেতে হচ্ছিল তাদের। দশম ওভারে ৬৫ রানের মাথায় তৃতীয় উইকেট হারিয়েছিল দলটি। তবে এরপর একপ্রান্ত আগলে রাখা রাইলে রুশো সঙ্গী হিসেবে রবি বোপারাকে পেয়ে রংপুরকে পাইয়ে দিয়েছিলেন চ্যালেঞ্জিং সংগ্রহ।

দুজনে ১০.১ ওভারে অবিছিন্ন জুটিতে যোগ করেছিলেন ১০৪ রান। এর মধ্যে শেষ ৫ ওভারেই আসে ৬৭ রান। ইনিংসের শুরুতে নামা রুশো ৫২ বলে ৭৬ রানে অপরাজিত থাকেন। তার ইনিংসে ছিল ৮ চার ও ২ ছক্কা। বোপারা ৩ চার ও ১ ছয়ে ৪০ রান করে মাঠ ছাড়েন ২৯ বল খেলে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর :

রংপুর রাইডার্স : ১৬৯/৩ (২০ ওভারে) (রুশো ৭৬*, মেহেদী মারুফ ৫, হেলস ১৫, মিঠুন ১৯, বোপারা ৪০*; তাইজুল ০/১৮, আলী ১/৩৫, শরিফুল ০/৩০, জহির ১/৩০, ব্র্যাথওয়েট ১/৩৯, মাহমুদউল্লাহ ০/৬)

খুলনা টাইটান্স : ১৬১/৫ (২০ ওভারে) (স্টার্লিং ৬১, জুনায়েদ ৩৩, শান্ত ১, মাহমুদউল্লাহ ২৪, আরিফুল ১২, ব্র্যাথওয়েট ৬*, জহুরুল ১২*; মাশরাফি ১/৩৫, সোহাগ গাজী ০/২১, শফিউল ২/৪৪, নাজমুল ০/১২, ফরহাদ রেজা ১/২৮, হাওয়েল ১/১৯)।

*রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন*
সম্পর্কিত সংবাদ
Leave a reply
ডেস্ক রিপোর্ট