সংসার সুখের হয় দু’জনের গুণে

সংসার সুখের হয় দু’জনের গুণে

সংসারে স্বামী-স্ত্রীতে মনোমালিন্য হতেই পারে। মুরুব্বীরা বলেন, দুটো পাথর পাশাপাশি থাকলে মাঝে মাঝে এক আধটু ধাক্কা লাগবেই। কিন্তু সেই ধাক্কা যেনো স্থায়ী রূপ না নেয়।

মন খারাপ বা ঝগড়া হওয়ার পর দু’জনেই রাগ করে থাকলে সেই অবস্থা আরও খারাপ দিকে মোড় নিতে পারে। তাই অন্তত যে কোনো একজনকে ছাড় দিতে হবেই। সংসার টিকে থাকে সেক্রিফাইসিং মনোভাবের ওপরেই।

দু’জনেই চেষ্টা করুন নিজেদের মাঝের সম্পর্কটাকে প্রতিদিনই ঝালিয়ে নিতে। এর জন্য বেশি কিছু করতে হবে না। শুধুমাত্র একজনের চেষ্টা আর অন্যজনের সহযোগিতা প্রয়োজন।

শুরুতেই ঘর সাজানোর বেলায় আপনার সঙ্গীর মতকে প্রাধান্য দিতে পারেন। অথবা প্রাধান্য না হোক তার মতামত মনোযোগ দিয়ে শোনার চেষ্টা করুন। তারপর স্বামী-স্ত্রী দু’জনে মিলেই নিজেদের ঘর সাজান। এতে পারষ্পরিক বোঝা-পড়া ও ভালোবাসা বাড়বে।

মাঝে মাঝেই একে অপরকে সারপ্রাইজ দেয়ার চেষ্টা করুন। কোনো উপলক্ষ না থাকুক, অফিস থেকে ফেরার সময় সঙ্গী বা সঙ্গিনীর জন্য একটা ফুল নেয়াই যায়। শুধুমাত্র উপলক্ষ থাকলেই ফুল নিতে হয় এটা ভুল ধারণা। ফুল নিয়ে ‘সাহেব’-এর অফিসে চলে যেতে পারেন অথবা ঘরের দরজা খোলার সঙ্গে সঙ্গে বাড়িয়ে দিতেন পারেন ফুল। ভালোবাসার দেবী ফিরে তাকাবেই।

ছুটির দিন বিকেলে বারান্দায় বসতে পারে চায়ের আড্ডা। চা তৈরি করার দায়িত্বটা আপনিই নিন। সংসার হয়ে উঠবে সুখের আধার।

এছাড়া ছুটির দিনে দু’জনে মিলে মুভি দেখতে পারেন। তবে অবশ্যই মুভিটা হতে হবে দু’জনের পছন্দ অনুসারে। এভাবে প্রত্যেকটা কাজে একে অন্যকে প্রাধান্য দিলে দাম্পত্য জীবন হয়ে উঠবে নিশ্চিত সুখের।

*রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন*
সম্পর্কিত সংবাদ
Leave a reply
ডেস্ক রিপোর্ট