সঙ্গী ছাড়া ভালোবাসা দিবস উদযাপনের টিপস!

সঙ্গী ছাড়া ভালোবাসা দিবস উদযাপনের টিপস!

ভালোবাসা দিবস পালন করার জন্য যে সঙ্গী থাকতে হবে এমন কোন কথা নেই। অনেকেই ভাবেন আমি সিংগেল, তাই আমার জন্য কোন ভালোবাসা দিবস নেই। কিন্ত সিঙ্গেল বলে যে ভালোবাসা দিবস পালন করা যাবেন না এমন কোন নিয়ম আছে নাকি? তাই যারা এই বিশেষ দিনটিতে এখনো সিঙ্গেল তাঁদের জন্য রইল কিছু মজার টিপস ভালোবাসা দিবস উদযাপন করার জন্য।

নিজের জন্য শপিং করুন

যেহেতু কোন সঙ্গী নেই তাই কোনো ঝামেলাও নেই। উপহার পছন্দ হওয়া না হওয়ারও কোনো চিন্তা নেই। তাই এ দিনটি উদযাপন করার জন্য নিজের জন্য নিজে শপিং করুন। পছন্দের জিনিসগুলো কিনে নিজেকেই নিজে সাজিয়ে নিন। সেলফি তুলুন আর ফেসবুক তো আছেই।

বাসাতেই সকলের জন্য তৈরি করুন খাবার

অন্য প্রেমিক-প্রেমিকারা বা বিবাহিত দম্পতিরা এই দিনে সঙ্গীকে খুশি করার জন্য রান্না-বান্না নিয়ে ব্যস্ত থাকেন। আপনি ভেবে দেখুন এ ঝামেলা থেকে আপনি কতো দূরে আছেন। তাই সঙ্গী নেই তো কি হয়েছে, পরিবার তো আছে। তাদের জন্য রান্না করুন। বাইরে থেকে খাবার এনেও এ দিনটি উদযাপন করতে পারেন।

টাকার চিন্তা করুন

টাকার চিন্তা করবেন কারণ সিঙ্গেল বলেই আপনার কতোগুলো টাকা বেঁচে গেল। সঙ্গী থাকলে কোনো না কোনো উপহার তো দিতেই হতো। তখন অনেকগুলো টাকা খরচও হয়ে যেত। তাই সঙ্গীও নেই টাকা খরচ হওয়ার চিন্তাও নেই। তবে পরিবারের মানুষগুলো জন্য এনে দিতে পারেন পছন্দের উপহার।

ভালোবাসা দিবসেও অফিস

সিঙ্গেল হওয়ার সুবিধা কর্মক্ষেত্রেও পাবেন। অফিসে বসের কাছে নিজেকে প্রমাণ করতে ভালোবাসা দিবসটিকে উৎসর্গ করে দিন। হয়তো আপনার কলিগরা ছুটি নিয়ে এ বিশেষ দিনটি উদযাপন করছেন আর আপনি সেই ফাঁকে সিঙ্গেল হওয়ার কারণে বসের চোখে হয়ে যাবেন আদর্শ কর্মচারী।

পরিবারের সাথে সারাদিন কাটিয়ে দিন

ভালোবাসা দিবস তো শুধু মাত্র প্রেমিক প্রেমিকার জন্য নয়। এ বিশেষ দিনটি উদযাপন করার জন্য আছে পরিবার। তাই এ দিনটি কাটিয়ে দিন বাবা-মা, ভাই-বোনের সাথে। চাইলে ঘুরতেও যেতে পারেন পুরো পরিবারের সাথে।

সিঙ্গেল বলে মন খারাপ নয়

এ দিনে বন্ধুরা তাদের সঙ্গী নিয়ে কতো মজা করছে আর আপনি সিঙ্গেল বলে মন খারাপ করে বসে থাকবেন নিজেকে প্রেম করার অযোগ্য বলে মনে করবেন, এ সকল চিন্তা নিজের মাথা থেকে দূরে রাখুন। ভাবুন আপনি অন্যদের থেকে অনেক ভালো আছেন। কারণ, সঙ্গীকে নিয়ে আপনাকে কোনো চিন্তা করতে হচ্ছে না, উপহার দিতে হচ্ছে না। আপনার টাকার চিন্তা নেই, নিজেকে নিজে সময় দিতে পারছেন, পরিবারকে সময় দিতে পারছেন – এসব ভাবুন দেখবেন ভালো লাগবে। তখন মনে হবে যেমন আছেন খুব ভালো আছেন।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেক্স রিপোর্ট