সন্তান নেশাগ্রস্ত হলে যা করেবেন

সন্তান নেশাগ্রস্ত হলে যা করেবেন

মানসিক স্বাস্থ্য-বিষয়ক একটি ওয়েবসাইটে প্রকাশিত প্রতিবেদন থেকে আসক্ত সন্তানকে পথে ফিরিয়ে আনার উপায় সম্পর্কে জানা যায়।সন্তানকে ভালো মন্দ বোঝানো দায়িত্ব বাবা মায়ের। অনেক গবেষণা থেকে দেখা গেছে, সন্তানের প্রতি পিতামাতার আক্রমণাত্মক আচরণ তাকে নেশার দিকে ঠেলে দেয়।

এই সময় পেশাদার পরামর্শকের সাহায্য নেওয়া প্রথম ও প্রধান দায়িত্ব। একজন আসক্তি বিশেষজ্ঞ বা সাকোলজিস্ট’য়ের সঙ্গে পরামর্শ করে এই ধরনের সমস্যার সমাধান খোঁজা উচিত। তাছাড়া যতটা সম্ভব আসক্তি বিষয় নিয়ে পড়াশুনা করুন। যেমন- এর ফলে কী হয়, কীভাবে এর থেকে রক্ষা পাওয়া যায় ইত্যাদি বিষয় সম্পর্কে জানার চেষ্টা করুন।

আপনার সন্তানের কথা শুনুন। রাসায়নিক উপাদানের উপর নির্ভরশীলতা বাড়ার অন্যতম কারণ হল মানসিক চাপ। তাই সন্তানের উপর কখনও খুব বেশি চাপ সৃষ্টি করা ঠিক না। সত্যি বলতে আপনি কখনই আপনার সন্তানের হয়ে কোনো সিদ্ধান্ত নিতে পারবেন না। তাই তার সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগের মাধ্যমে তার মানসিক অবস্থা বোঝার চেষ্টা করুন এতে সে বিপথগামী হওয়া থেকে বিরত থাকবে।

সন্তানের যত্ন নেওয়া ও তাকে রক্ষা করা বাবা মায়ের একটি সহজাত প্রবৃত্তি। কিন্তু সব সময় সন্তানকে আগলে রাখলে সে জীবন সম্পর্কে গুরুত্বপূর্ণ জ্ঞান অর্জন করতে পারবে না। তাই সন্তানের সঙ্গে ঠিক কী ধরনের আচরণ করতে হবে তা চিকিৎসকের সঙ্গে পরামর্শ করে নেওয়া ভালো।এমন খারাপ পরিস্থিতিতে সন্তানের পাশে দাঁড়ানো অনেক সাহস ও ধৈর্য্যের ব্যাপার। এ সময় নিজের প্রতি যত্ন নিতে অবহেলা করা যাবে না। নিজের খাদ্যের প্রতি যত্নশীল হতে হবে ও অবসাদ দূর করার জন্য পর্যাপ্ত বিশ্রাম নিতে হবে। এই সময় হয়ত রাতে সহজে ঘুমাতে পারাটা বেশ কষ্টসাধ্য কিন্তু যতটা সম্ভব নিজের স্বাস্থ্যের প্রতি মনোযোগ দেওয়া উচিত।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট