‘সন্ত্রাস মোকাবেলায় ভূমিকা রাখবে ই-পাসপোর্ট’

 ‘সন্ত্রাস মোকাবেলায় ভূমিকা রাখবে ই-পাসপোর্ট’

ই-পাসপোর্টের মাধ্যমে পাসপোর্টের সর্বোচ্চ নিরাপত্তা নিশ্চিতের পাশাপাশি বাংলাদেশি নাগরিকরা বিশ্বের যে কোনো দেশে স্বাচ্ছন্দ্যে চলাফেরা করতে পারবেন বলে আশা প্রকাশ করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে জার্মানির সঙ্গে ই-পাসপোর্ট বাস্তবায়ন ও স্বয়ংক্রিয় বর্ডার কন্ট্রোল ব্যবস্থাপনা সংক্রান্ত চুক্তি স্বাক্ষর শেষে এ কথা জানান মন্ত্রী। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন জার্মান পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী নেইলস অ্যানেন।

এদিন ডিজিটাল বাংলাদেশ রূপায়ণের ধারা অব্যাহত রাখার লক্ষ্যে ই-পাসপোর্ট চালু করতে জার্মান কোম্পানির সঙ্গে চুক্তি স্বাক্ষর করেছে বাংলাদেশের ইমিগ্রেশন ও পাসপোর্ট অধিদফতর। জার্মানির ভেরিডোস কোম্পানির সঙ্গে ইমিগ্রেশন ও পাসপোর্ট অধিদফতর জিটুজি’র ভিত্তিতে টার্ন কি পদ্ধতিতে এটি বাস্তবায়ন করা হবে।

তিনি বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশের স্বপ্নে থেমে নেই বাংলাদেশ। এ পর্যন্ত ২ কোটিরও বেশি মেশিন রিডেবল পাসপোর্ট বাংলাদেশি নাগরিকদের দেওয়া হয়েছে এবং ১১ লাখেরও বেশি মেশিন রিডেবল ভিসা বিদেশিদের দেওয়া হয়েছে। তবে এমআরপি পাসপোর্ট এখন বন্ধ হয়ে যাবে না। ই-পাসপোর্ট সম্পূর্ণরুপে চালু হওয়ার আগ পর্যন্ত এটি চালু থাকবে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, রোহিঙ্গাদের এ দেশে থাকার সুযোগ দিয়ে মাদার অব হিউম্যানিটি আখ্যা পেয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আর রোহিঙ্গারা যেন বাংলাদেশিদের সঙ্গে মিশে যেতে না পারে তাই এই অধিদফরটি সফলতা দেখিয়েছে। তারা রোহিঙ্গাদের ইলেকট্রনিক নিবন্ধনের কাজটিও সম্পাদন করেছে।

অনুষ্ঠানে জার্মানির পররাষ্ট্রবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী (state minister) নেইলস আনেন বলেন, খুব অল্প সময়ে বাংলাদেশ স্বাধীনতার পর অগ্রগতি অর্জন করছে। এই চুক্তির মাধ্যমে জার্মানি কোম্পানির সহায়তায় বাংলাদেশ তার চ্যালেঞ্জের পক্ষে আরও এগিয়ে যাচ্ছে। জার্মানির ভেরিডোস কোম্পানির বাংলাদেশের সঙ্গে কাজ করার অভিজ্ঞতা এর আগেও আছে। আর আমরা বাংলাদেশিদের এ কাজে প্রশিক্ষণ দেওয়ার মাধ্যমে দক্ষ করে গড়ে তুলতে সাহায্য করবো।

ই-পাসপোর্ট চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ইমিগ্রেশন ও পাসপোর্ট অধিদফতরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মাসুদ রেজওয়ান, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা বিভাগের সচিব ফরিদ উদ্দিন আহমদ চৌধুরী, ভেরিডোস কোম্পানির সিইও কুনসসহ অনেকে। এছাড়াও পাসপোর্ট অধিদফতর ও মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারাও এসময় উপস্থিত ছিলেন।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট