সফেদার পুষ্টিমান ও উপকারিতা

সফেদার পুষ্টিমান ও উপকারিতা

সফেদা একটি উচ্চ পুষ্টিমান সমৃদ্ধ মিষ্টি, সুস্বাদু ও সুগন্ধী একটি ফল। এটিকে বলা হয় ‘প্রাকৃতিক পুষ্টির দোকান’। সফেদা শর্করা, আমিষ, ভিটামিন, ফলেট, ক্যালসিয়াম, আয়রন মিলিগ্রাম, ম্যাগনেসিয়া, ফসফরা, পটাশিয়াম, সোডিয়াম, ও জিংক এর একটি সমৃদ্ধ উৎস।

গরমকালের ফল সফেদা শরীর ও মনের জন্য উপকারী এক ফল। শারীরিক শক্তির অসীম উৎস এই সফেদা। এটি খেতে পারেন ব্লেন্ডারে জুস বানিয়েও। আসুন জেনে নেয়া যাক সফেদার আরও কিছু গুণাগুণ:

মনের উদ্বেগ দূর করে সফেদা

চোখ ভালো রাখে

চোখের জন্য গুরুত্বপূর্ণ পুষ্টি উপাদান ভিটামিন-এ’র সমৃদ্ধ উৎস সফেদা। নিয়মিত ফলটি খেলে দৃষ্টিশক্তি ভালো থাকে।

মন ভালো করে সফেদা

সফেদায় প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন এ এবং সি রয়েছে। সফেদা খেলে মানসিক চাপ ও উদ্বেগ দূর হয়। সফেদা ফলের স্নায়ু শান্ত করার অসাধারণ এক ক্ষমতা আছে।

কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে

সফেদায় রয়েছে প্রয়োজনীয় আঁশ জাতীয় উপাদান, যা উপকারি প্রাকৃতিক ল্যাক্সাটিভিয়া হিসেবে ব্যবহৃত হয় এবং হজমে সহায়তা করে। হজমের সমস্যা দূর করার পাশাপাশি কোষ্ঠকাঠিন্য থেকেও মুক্তি দিতে পারে সফেদা।

ক্যান্সার প্রতিরোধ করে

অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, আঁশ ও নানা পুষ্টি উপাদানের অন্যতম উৎস সফেদা ক্যান্সার প্রতিরোধে সহায়তা করে। এ ক্যান্সারগুলোর মধ্যে রয়েছে, ফুসফুসের ক্যান্সার, মুখ-গহ্বরের ক্যান্সার ইত্যাদি।

হাড় মজবুত করে

গ্রীষ্মকালীন এই ফলটি হাড়ের জন্য ভালো। হাড়কে মজবুত করার পাশাপাশি শক্তিশালী করে সবেদা। কারণ, এ ফলে রয়েছে ক্যালসিয়াম, ফসফরাস ও আয়রনের মতো খনিজ উপাদান, যা হাড়ের ঘনত্ব ও সহনক্ষমতা বাড়ায়।

রোগ-প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়

সফেদা ভিটামিন-সি সমৃদ্ধ ফল, যা শরীরকে পুনরুজ্জীবিত করে এবং নবশক্তি সঞ্চার করে। ফলে, ত্বকে বলিরেখা পড়ে না এবং রোগ-প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়।

মনের উদ্বেগ দূর করে সফেদা

কিডনি ভালো রাখে

কিডনির ভালো রাখেতে সাহায্য করে সফেদা। মূত্রবর্ধক ওষুধ হিসেবে সফেদার দানা অত্যন্ত কার্যকর। কিডনি ও মূত্রথলির পাথর অপসারণে সাহায্য করে এই ফল।

ফুসফুসের জন্য দরকারী

শরীরের কোষের ক্ষতিসাধন প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে। নিয়মিত সফেদা খেলে ঘন ঘন ঠাণ্ডা লাগার সমস্যা কমে যায়। শ্বাসকষ্ট দূর করতে সাহায্য করে এবং ফুসফুস ভালো রাখে।

১০০ গ্রাম সফেদায় আছে

শর্করা ১৯.৯৬ গ্রাম, আমিষ ০.৪৪ গ্রাম, ভিটামিন – বি২ ০.০২ মিলিগ্রাম, ভিটামিন – বি৩ ০.২০ মিলিগ্রাম, ভিটামিন – বি৫ ০.২৫২ মিলিগ্রাম, ভিটামিন – বি৬ ০.০৩৭ মিলিগ্রাম, ফলেট ১৪ আই ইউ, ভিটামিন ‘সি’১৪.৭ মিলিগ্রাম, ক্যালসিয়াম ২১  মিলিগ্রাম, আয়রন ০.৮ মিলিগ্রাম, ম্যাগনেসিয়াম ১২ মিলিগ্রাম, ফসফরাস ১২ মিলিগ্রাম, পটাশিয়াম ১৯৩ মিলিগ্রাম, সোডিয়াম ১২ মিলিগ্রাম, জিংক ০.১ মিলিগ্রাম। সর্বমোট খাদ্য শক্তি: ৮৩ কিলো ক্যালোরি।

*রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন*
সম্পর্কিত সংবাদ
Leave a reply
ডেস্ক রিপোর্ট