সমুদ্রের গভীরে খোঁজ মিলল পৃথিবীর প্রাচীনতম চোখের

সমুদ্রের গভীরে খোঁজ মিলল পৃথিবীর প্রাচীনতম চোখের

আবিষ্কৃত হল ৫৩০ বছরের পুরনো পৃথিবীর সব থেকে প্রাচীনতম চোখ। একদল গবেষকে সম্প্রীতি এমনটায় চাঞ্চল্যকর দাবি জানিয়েছে। সমুদ্রের নিচ থেকে আবিষ্কৃত জীবাশ্মের মধ্যেই রয়েছে পৃথিবীর প্রাচীনতম চোখ।

গবেষকদের দাবি, ৫৩ কোটি বছর আগে সমুদ্রে নিচে বিলুপ্ত প্রাণীর জীবাশ্ময় এই চোখ ছিল। আবিষ্কার করা জীবাশ্মের চোখের সঙ্গে বর্তমান অনেক প্রাণীর মিল খুঁজে পাওয়া গিয়েছে বলে জানিয়েছেন ইংল্যান্ডের ইডেনবার্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা।

বিশেষ করে কাঁকড়া, মৌমাছি এবং ফড়িং সঙ্গে আবিস্কৃত বিলুপ্ত প্রাণীর জীবাশ্মের চোখের সঙ্গে অনেক মিল রয়েছে বলে দাবি গবেষকদের। ইডেনবার্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা দীর্ঘদিন ধরে সমুদ্র উপকূলবর্তী এলাকার কীট-পতঙ্গ নিয়ে গবেষণা করছেন। প্যালিওজোয়িক যুগের আবিষ্কার হওয়া জীবাশ্মের সঙ্গে সমুদ্র এলাকার মাকড়শা এবং কাঁকড়ার পূর্বপুরুষ বলে মনে করছেন গবেষকরা। প্রাথমিকভাবে ফসিল পরীক্ষা করে ইডেনবার্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা জানাচ্ছেন ৫৪ থেকে ২৫ কোটি বছর পুরানো এটি।

আবিষ্কার হাওয়া জীবাশ্মের চোখের অপটিকাল অর্গানের অংশের সঙ্গে অনেকটাই মিল রয়েছে বর্তমানের মৌমাছির চোখের অপটিকাল অর্গানের। ইডেনবার্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণার বিষয় বস্তু পিএনএএস জার্নালে প্রকাশিত হওয়ার পর থেকেই আলোড়ন তৈরি হয়েছে গবেষক মহলে। একই সঙ্গে বিজ্ঞানীরা আরও জানিয়েছেন, জীবাশ্ম চোখের গঠন ও কাজের সঙ্গে সম্পূর্ণ আধুনিক চোখের উপকরণ একেবারে আলাদা। ইডেনবার্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ইয়ান ক্লার্কসন বলেন, আবিষ্কৃত জীবাশ্মটি খুবই ব্যতিক্রমী।

*রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন*
সম্পর্কিত সংবাদ