সহিংস কর্মকাণ্ডে বিএনপি ছিল না- ফখরুল

সহিংস কর্মকাণ্ডে বিএনপি ছিল না- ফখরুল

নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে কোনো সহিংস কর্মকাণ্ডে বিএনপি জড়িত ছিল না বলে দাবি করেছেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

শুক্রবার নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ দাবি করেন।

গত ২৯ জুন বিমানবন্দর সড়কে বাসচাপায় দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যুর ঘটনাকে কেন্দ্র করে রাজধানীসহ সারা দেশে শিক্ষার্থীরা দুর্বার আন্দোলন গড়ে তোলে। এক পর্যায়ে ওই আন্দোলন সহিংসতায় রূপ নেয়। এজন্য জামায়াত-বিএনপিকে দায়ী করেছে সরকার। বিএনপির এক শীর্ষ নেতার ফোনালাপও ফাঁস হয়।

ইতিমধ্যে উস্কানি দেওয়ার অভিযোগে মামলা হয়েছে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী এবং সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীর বিরুদ্ধে।

এ নিয়ে শুক্রবার এক সংবাদ সমম্মেলনে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘আমরা দৃঢ়ভাবে বলতে চাই যে, শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে সহিংস কোনো কর্মকাণ্ডে বিএনপি কখনো জড়িত ছিল না।’

শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে আক্রমন বিএনপি-জামায়ত কর্মীরা করেছে- আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের এ বক্তব্যের কঠোর সমালোচনা করে

তিনি বলেন, এদেশের এমন কোন পাগলও নেই তারা বিশ্বাস করবে যে পুলিশের সহায়তায় এবং তাদের সামনে বিএনপি-জামায়ত কর্মীরা আগ্নেয়াস্ত্র, লাঠি-সোটা নিয়ে ছাত্র-ছাত্রীদের মারপিট করবে। দায়িত্বপালনরত সাংবাদিকদের কোপাবে, ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ অফিস আক্রমন করবে আর তাদেরকে গ্রেপ্তার করা হবে না। হেলমেট পড়া ও মুখোশধারী আক্রমনকারীরা ছাত্রলীগ-যুবলীগ কর্মী ছিল এটা আহত সব সাংবাদিক এবং ছাত্র-ছাত্রীরা বলার পরেও আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক তাদের বিচার করার জন্য নাম চান। এমন বাজে রসিকতায় তিনি আনন্দ পেতে পারেন। কিন্তু দেশবাসী লজ্জিত হয়।

শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে সহিংস কোন কর্মকাণ্ডে বিএনপি কখনো জড়িত ছিল না দাবি করে মির্জা ফখরুল বলেন, যারা পুলিশের সামনে হেলমেট ও মুখোশ পড়ে সহিংসতা করেছে সাংবাদিকসহ আন্দোলনকারীদের ওপর নির্মম হামলা চালিয়েছে, আওয়ামী লীগের সেই সন্ত্রাসীদের অবিলম্বে চিহ্নিত ও গ্রেপ্তার করে বিচারের আওতায় আনার আমরা জোর দাবি জানাচ্ছি।

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, ড. মঈন খান, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, নজরুল ইসলাম খান, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আব্দুস সালাম, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট