সাফ অনুর্ধ্ব-১৫ এর চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ

সাফ অনুর্ধ্ব-১৫ এর চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ

আরও একবার বাংলাদেশের জয়ের নায়ক হলেন গোলরক্ষক মেহেদী হাসান। সেমিফাইনালে তার নৈপুণ্যেই জয় পেয়েছিল বাংলাদেশ। ভারতের দুটি স্পটকিক ফিরিয়েছিলেন। ফাইনালে ফেরালেন তিনটি। ফলে সাফ অনূর্ধ্ব-১৫ চ্যাম্পিয়নশিপের শিরোপা জিতেছে লাল সবুজের দল।

নেপালের আনফা কমপ্লেক্সে শনিবার নির্ধারিত ৯০ মিনিটের খেলা ১-১ গোলে ড্র থাকার পরে টাইব্রেকারে গড়ায় ম্যাচ। আর টাইব্রেকারে ৩-২ গোলের ব্যবধানে ম্যাচ জিতে শিরোপা পুনরুদ্ধার করল বাংলাদেশ। ২০১৫ সালে প্রথমবার শিরোপা জিতেছিল দলটি

ম্যাচের প্রথমার্ধে ১-০ গোলের লিড নিয়ে বিরতিতে যায় বাংলাদেশের কিশোররা। বিরতির পর পাকিস্তান সমতায় ফেরে। এরপর ম্যাচ গড়ায় পেনাল্টি শুটআউটে। সেখানে বাংলাদেশ জয় তুলে নেয় ৪-৩ (টাইব্রেকারে ৩-২) ব্যবধানে। সেমি ফাইনালে ভারতের বিপক্ষে টাইব্রেকারে দুটি সেভ করে দলের জয়ের নায়ক হয়েছিলেন বাংলাদেশের গোলরক্ষক মেহেদি হাসান। ফাইনালের আগে বলেছিলেন জীবন দিয়ে হলেও পাকিস্তানের বিপক্ষে জিততে চান। সেটাই করে দেখালেন এই খুদে টাইগার গোলরক্ষক। বদলি হিসেবে নেমে ফাইনালে পাকিস্তানের বিপক্ষে টাইব্রেকারে তিনটি সেভ করেন মেহেদি।

এর আগে ভারতকে নাটকীয়ভাবে পেনাল্টি শুটআউটে হারিয়ে সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনাল নিশ্চিত করে বাংলাদেশ। আর দ্বিতীয় সেমিতে নেপালকে বড় ব্যবধানে হারিয়ে শেষ দুইয়ে পা রাখে পাকিস্তান। প্রথম সেমিতে ভারতের বিপক্ষে পেনাল্টি শুটআউটে ৪-২ ব্যবধানে জিতেছিল লাল-সবুজরা। তাই অপেক্ষাটা ছিল কে হতে যাচ্ছে ফাইনালে বাংলাদেশের প্রতিদ্বন্দ্বী। সেটাও নিশ্চিত হয়ে যায় দ্বিতীয় সেমিতে। আয়োজক দেশ নেপালকে ৪-০ গোল ব্যবধানে হারিয়ে শক্ত প্রতিদ্বন্দ্বিতার জানান দিয়েছিল পাকিস্তান।

গ্রুপ পর্বে মালদ্বীপকে ৯-০ ও নেপালকে ২-১ ব্যবধানে হারিয়ে সেমি নিশ্চিত করেছিল লাল-সবুজ জার্সিধারীরা। সেমিতে ভারতকে পেনাল্টি শুট আউটে ৪-২ ব্যবধানে হারিয়ে ফাইনাল নিশ্চিত করে মাসুদ আনোয়ার পারভেজের শিষ্যরা। অন্যদিকে গ্রুপ পর্বে ভারতকে ২-১ ও ভুটানকে ৪-০ ব্যবধানে হারিয়ে সেমি নিশ্চিত করে নেপালকে একই ব্যবধানে হারিয়ে সাফ ফুটবলের ফাইনালে পা রাখে পাকিস্তান।

মাত্র আড়াই মাস অনুশীলন করিয়ে দক্ষিণ এশিয়ার বিশ্বকাপ খ্যাত এই টুর্নামেন্টের ফাইনালে উঠে কোচ মাসুদ আনোয়ার পারভেজের শিষ্যরা। সবশেষ ২০১৫ সালে এই টুর্নামেন্টের শিরোপা জিতেছিল বাংলাদেশ। এবার সেই শিরোপা পুনরুদ্ধারের মিশনে নেমেছিল মেহেদী-উচ্ছ্বাসরা। তবে, আগেরবার টুর্নামেন্টটি ছিল অনূর্ধ্ব-১৬ বছর বয়সীদের নিয়ে। এবার সেটা ছিনিয়ে আনলো অনূর্ধ্ব-১৫ বছর বয়সীরা।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট