সাফ চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশের মেয়েরা

সাফ চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশের মেয়েরা

এর আগে সেমিতে ভুটানকে হারিয়ে আসরের ফাইনালে ওঠে বাংলাদেশ। শিরোপা প্রত্যাশী মারিয়া-কৃষ্ণা-স্বপ্নারা হয়তো এটাই চেয়েছিলো। ফাইনালে প্রতিপক্ষ হিসেবে পেয়েছিল নেপালকে। রোববার (৭ অক্টোবর) নেপালের বিপক্ষে মাসুরা পারভীনের একমাত্র গোলে ১-০ ব্যবধানে জয় তুলে শিরোপা নিজেদের করে নিয়েছে গোলাম রাব্বানী ছোটনের শিষ্যরা।

গত শুক্রবার (৫ অক্টোবর) সেমিফাইনালে ভুটানের মাটিতেই আয়োজকদের ৪-০ ব্যবধানে উড়িয়ে দিয়ে লাগাতার তিনটি ফাইনালে পৌছালো গোলাম রাব্বানী ছোটনের শিষ্যরা। দুটি অনূর্ধ্ব-১৫ চ্যাম্পিয়নশিপ আর এবার অনূর্ধ্ব-১৮ চ্যাম্পিয়নশিপ। ভুটানের মাটিতেই পরপর দুই মাসে দুটি চ্যাম্পিয়নশিপের শিরোপা প্রত্যাশির শীর্ষে উঠেছিল মেয়েরা।

শুরু থেকে দুই দলই আক্রমণে গেলেও রক্ষণ ও গোলরক্ষকের কারণে সুবিধা করতে পারেনি। শেষ পর্যন্ত একটি গোলই গড়ে দিয়েছে ম্যাচের পার্থক্য।

লক্ষ্যে প্রথম দুটি শট ছিল নেপালের। ৭ মিনিটের প্রথম চেষ্টা রুখতে বেশি কষ্ট করতে হয়নি বাংলাদেশের গোলরক্ষক রুপনা চাকমাকে। বল হাতে নিয়েই তিনি সুযোগ করে দেন, গোল কিকে নেপালের প্রান্তে বল পাঠান। শুধু গোলরক্ষককে একা পেয়েও সুযোগ কাজে লাগাতে পারেননি কৃষ্ণা রানী সরকার। অঞ্জনা রানা মাগারের মাথার উপর দিয়ে তিনি বল মারলে গোলপোস্টের পাশ দিয়ে মাঠের বাইরে চলে যায়।

নেপালের আরেকটি চেষ্টা ১৫ মিনিটে ঠেকান রুপনা। ২২ মিনিটে লক্ষ্যে শট নেয় বাংলাদেশ, আবারও কৃষ্ণা আক্রমণে যান। ডিবক্সের প্রান্ত থেকে তার ডান পায়ের দুর্বল শট খুব সহজেই হাতে নেন নেপালের গোলরক্ষক। বিরতির আগে শেষবার বাংলাদেশ লক্ষ্যে শট নেয় ৪৪ মিনিটে। সিরাত জাহান স্বপ্না দুজন ডিফেন্ডারকে কাটালেও বক্সে ঢুকতে পারেননি। বক্সের বাইরে থেকে শট নিতে বাধ্য হন তিনি। সেটা সহজে প্রতিহত করেন অঞ্জনা।

গোল উদযাপন করছে বাংলাদেশের খেলোয়াড়রাবিরতির পর ফিরেই ৪৭ মিনিটে ফ্রি কিক থেকে নেপাল একটি সুযোগ তৈরি করেছিল। রুপনা দারুণ দক্ষতায় তাদের ব্যর্থ করে দেন। দুই মিনিট পর ফ্রি কিক কাজে লাগিয়ে এগিয়ে যায় বাংলাদেশ। বক্সের মধ্যে উড়ে আসা বলে হেড করে ৪৯ মিনিটে লক্ষ্যভেদ করেন মাসুরা পারভীন।

৫১ ‍মিনিটে মাঝমাঠ থেকে উড়ে আসা বল ঠেকাতে গিয়ে পড়ে যান রুপনা। বাংলাদেশি গোলরক্ষকের হাত ফসকে পাওয়া বলে শট নেয় নেপাল। কিন্তু গোলপোস্টে বল লেগে লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। ৬১ মিনিটে বাংলাদেশের একটি শট সহজে রুখে দেন অঞ্জনা। তবে ৬৮ ও ৭২ মিনিটে গোলবারের সামনে দারুণ দুটি সুযোগ পেয়েও কাজে লাগাতে পারেনি নেপাল। তাতে একমাত্র গোলেই জয় উৎসব করে বাংলাদেশ।

এই নেপালকে আগের দেখায় ২-১ গোলে হারিয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল বাংলাদেশ। তার আগে পাকিস্তানকে ১৭-০ গোলে উড়িয়ে দিয়ে সাফ শুরু করেন স্বপ্নারা। সেমিফাইনালে ভুটানকে ৪-০ গোলে উড়িয়ে দিয়ে দুই মাসের ব্যবধানে দ্বিতীয়বার ফাইনাল নিশ্চিত করে মেয়েদের বয়সভিত্তিক ফুটবল দলটি। গত আগস্টে অনূর্ধ্ব-১৫ সাফ ফুটবলে ফাইনালে ভারতের কাছে হেরে যায় মেয়েরা। এবার সেই ব্যর্থতা কাটিয়ে সাফল্য অর্জন করল তারা। তাদের এই সাফল্যে অভিনন্দন জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

*রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন*
সম্পর্কিত সংবাদ
Leave a reply
ডেস্ক রিপোর্ট