সেলফি তুলতে গিয়ে ট্রেনের নিচে কাটা পড়ে দুই মেয়েসহ বাবার মৃত্যু

সেলফি তুলতে গিয়ে ট্রেনের নিচে কাটা পড়ে দুই মেয়েসহ বাবার মৃত্যু

নরসিংদীতে সেলফি তুলতে গিয়ে ট্রেনের ধাক্কায় বাবা ও দুই মেয়েসহ তিনজন নিহত হয়েছেন। সোমবার (১৮ জুন) সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে রায়পুরা আমিরগঞ্জ রেল ব্রিজে এ ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- হাফিজুল ইসলাম (৪৫), তার অষ্টম শ্রেণিতে পড়–য়া মেয়ে তারিন আক্তার (১৪), শিশু সন্তান তুলি আক্তার (২)। নিহত হাফিজ নোয়াখালী জেলার বাসিন্দা। তিনি নরসিংদী শহরের বিলাসদী এলাকায় ভাড়া বাসায় থাকতেন এবং ক্ষুদ্র ব্যবসা করতেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ঈদ উপলক্ষে গতকাল বিকালে পরিবার-পরিজন নিয়ে আমিরগঞ্জ ব্রিজ এলাকায় বেড়াতে যান হাফিজুল ইসলাম।

এ সময় তারা ট্রেন চলাচলকারী ব্রিজের ওপর চলে যান। সেলফি তুলতে গিয়ে পেছন থেকে নোয়াখালীগামী উপকূল এক্সপ্রেসের ধাক্কায় ট্রেনের নিচে পড়ে যান। স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে নরসিংদী সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন।

স্থানীয়রা বলছেন, নিহতরা সেলফি তুলছিল। তাই ট্রেন চলে আসলেও দেখতে পায়নি। রেল ফাঁড়ির উপপরিদর্শক শাহ আলম বলেন, আমাদের ধারণা তারা ব্রিজে ঘোরাঘুরি করছিল। ট্রেন চলে আসায় তারা আর ব্রিজ থেকে বের হতে পারেনি। তাই ঘটনাস্থলেই তাদের মৃত্যু হয়।

নরসিংদী রেলওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির এসআই আবু সায়েম চৌধুরী জানান, রেলওয়ে পুলিশ দুর্ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে এবং লাশগুলো পুলিশের হেফাজতে নেওয়া হয়েছে।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট