সৌদি নেতৃত্বাধীন আরব দেশগুলোর পরস্পর বিরোধী বিবৃতির নিন্দা জানাল কাতার

সৌদি নেতৃত্বাধীন আরব দেশগুলোর পরস্পর বিরোধী বিবৃতির নিন্দা জানাল কাতার

কাতারের ওপর অবরোধ আরোপকারী সৌদি নেতৃত্বাধীন তিন আরব দেশের অসংযত আচরণ এবং পরস্পর বিরোধী বিবৃতির কড়া নিন্দা জানিয়েছে দোহা। দোহার সাথে চলমান সংকট নিরসনের লক্ষ্যে এর আগে সৌদি আরব এবং তার তিন আরব মিত্র যেসব শর্ত জুড়ে দিয়েছিল সেখান থেকে তারা সরে এসেছে বলে মনে করা হচ্ছে।

বুধবার কাতারের শীর্ষস্থানীয় কর্মকর্তা শেখ সাইফ বিন আহমেদ সানি মার্কিন বার্তা সংস্থা এসোশিয়েটেড প্রেস বা এপি’কে ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেছেন, গত মাসে কাতারের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করার পর থেকে চারটি আরব রাষ্ট্র একের পর এক দোহার বিরুদ্ধে বিতর্কিত ও পরস্পর বিরোধী বিবৃতি দিয়ে যাচ্ছে। এদিকে, এসব আরব দেশ কাতারকে নতুন করে ছয়টি শর্ত দিয়েছে। দেশগুলো আশা করছে, এসব শর্ত মেনে নেবে কাতার এবং এর মাধ্যমে চলমান সংকটের সমাধান হবে।

কাতারের সঙ্গে সব ধরণের কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্নকারী সৌদি আরবের পাশাপাশি অন্যান্য আরব রাষ্ট্রগুলো হচ্ছে সংযুক্ত আরব আমিরাত, মিশর এবং বাহরাইন। কূটনৈতিক সম্পর্ক ছাড়াও কাতারের সঙ্গে ভূমি, সমুদ্রসীমা ও আকাশসীমার সব যোগাযোগ ছিন্নের ঘোষণা দিয়েছে তারা।

সন্ত্রাসী সংগঠনগুলোকে প্রশ্রয় দেয়া এবং সৌদি আরবের ‘শত্রুদেশ’ ইরানকে সমর্থন দেয়ার অভিযোগ এনে গত ৫ জুন কাতারের সঙ্গে সব ধরনের সম্পর্ক ছিন্ন করেছে সৌদি আরব, বাহরাইন, সংযুক্ত আরব আমিরাত ও মিশর। তবে কাতার এসব অভিযোগ নাকচ করে দিয়েছে।

এদিকে, কাতারের ওপর থেকে সব ধরনের শর্ত তুলে নিতে সৌদি আরবের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন তুরস্কের উপ প্রধানমন্ত্রী নোমান কুরতুলমুস। গতকাল আল-জাজিরা টেলিভিশন চ্যানেলকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে এ আহ্বান জানান তিনি।  চলমান দ্বন্দ্বে দোহার প্রতি সমর্থন দিয়েছে তুরস্ক। দেশটি বলেছে, তেল-গ্যাসে সমৃদ্ধ কাতারকে একঘরে করার নীতি অনুসরণ করে কেউ লাভবান হতে পারবে না।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট