স্ক্রিনশট ফাঁস হওয়ায় বেকায়দায় চেতন ভগত!

স্ক্রিনশট ফাঁস হওয়ায় বেকায়দায় চেতন ভগত!

হোয়াটস অ্যাপে নারী উত্ত্যক্ত করে ফাঁসলেন ভারতের জনপ্রিয় ঔপন্যাসিক, নিবন্ধকার, বক্তা ও চিত্ৰনাট্যকার চেতন ভগত। অজ্ঞাত পরিচয়ে এক মহিলার সঙ্গে হোয়াটস অ্যাপে কথা হতো তার। সেইসব কথায় চেতনের পক্ষ থেকে প্রতিবারই থাকত ঘনিষ্ঠ হওয়ার ইঙ্গিত। তবে মহিলার তরফে সেই প্রস্তাব সাড়া দেওয়ার কোনো ইঙ্গিতই ছিল না কখনোই।

তারপরও লেখক চেতন ভগত প্রেম নিবেদনের চেষ্টা চালিয়ে যেতেন। যে সময় সেই মহিলার সঙ্গে চেতন আবেগী হয়ে কথা বলতেন সেই সময় তিনি কিন্তু বিবাহিত। কেউ বা কারা চেতন ভগত এবং ওই মহিলার মধ্যেকার হোয়াটস অ্যাপে হওয়া কথোপকথনের স্কিনশট ফাঁস করে দিল। যা দাবানলের মতো ছড়িয়ে পড়লো পুরো নেটবিশ্বে। এতে মহা-সমস্যায় পড়লেন টু স্টেটস, হাফ গার্লফ্রেন্ড-এর লেখক।

চেতনের বিতর্কিত স্ক্রিনশট সোশ্যাল সাইটে ছড়িয়ে পড়ায় এ নিয়ে শুরু হয় তীব্র আলোচনা-সমালোচনা। পরিস্থিতি বেগতিক দেখে নিজেই সামনে এসে পরিস্থিতির মোকাবিলার চেষ্টা করলেন চেতন। রাখঢাকের চেষ্টা না করে তিনি ওই মহিলার সঙ্গে কথোপকথনের সত্যতা স্বীকার করে নিলেন নিজেই।

বললেন, ‘ঘটনাটা কয়েক বছর আগেকার। তবে তখন আমি বিবাহিত। আমি প্রথমেই সেই মহিলার কাছে ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি। আপনাদের যদি আমার বলা ওই কথাগুলো ভুল বলে মনে হয় তা হলে আমি ক্ষমাপ্রার্থী। আমি সেই মহিলার সঙ্গে বেশ কয়েকবার দেখা করি। একটা সময় পর আমরা ভাল বন্ধুও হয়ে যাই। আমি সব সময় ওর প্রতি টান অনুভব করতাম। কারণ ও একজন ভাল মনের মানুষ। হয়তো কিছুদিনের জন্য আমি দিকভ্রষ্ট হয়েছিলাম। আর সে জন্য আমি আমার স্ত্রী অনুষার কাছে ক্ষমাও চেয়ে নিয়েছি।’

সেই স্ক্রিনশটে চেতন সেই মহিলার উদ্দেশে লিখেছেন, ‘তুমি মিষ্টি ও ভাল মনের মানুষ। তাই আমি তোমার সঙ্গে ঘনিষ্ঠ হতে চাই। বলো, তুমি আমার সঙ্গে ঘনিষ্ঠতা করবে? কিছু বলো।’ সেই মহিলা অবশ্য চেতনকে প্রশ্রয় দেননি। বরং উল্টে তিনি বলেন, ‘আর পাঁচজন বিবাহিত পুরুষের মতো কেন কথা বলছ! তুমি আর পাঁচজনের থেকে আলাদা হতেই পারো। তুমি তো এরকম নয়।’

যদিও এরপরও চেতন প্রেম নিবেদনের চেষ্টা চালিয়ে যেতে থাকেন। কিন্তু শেষমেশ সেই মহিলা চেতনকে নিজের অবস্থান বুঝিয়ে দেন। ‘ঘনিষ্ঠ হতে চাই’- প্রসঙ্গে চেতনের সাফাই, ‘এই নির্দিষ্ট কথাটা কোনো অন্য আলোচনা থেকেও আসতে পারে। আমার এই মুহূর্তে ঠিক মনে নেই। তবে এটুকু মনে আছে যে সে সময় আমার মহিলাদের নিয়ে একটা বই প্রকাশ হওয়ার কথা ছিল। সেই বিষয়ে আলোচনা হতে হতে পরিস্থিতি অনুযায়ী আমি ওই কথাটা বলে থাকতে পারি। তবে আমাদের মধ্যে কোনো অশ্লীল ছবি আদান-প্রদান হত না। আরও একবার আমি আমার স্ত্রী ও ওই মহিলার কাছে ক্ষমা চাইছি।’

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট