স্ত্রীর পরকীয়ার জেরেই রথীশচন্দ্র খুন!

স্ত্রীর পরকীয়ার জেরেই রথীশচন্দ্র খুন!

 

নিখোঁজের পাঁচদিন পর রংপুরের আইনজীবী রথীশ চন্দ্র ভৌমিকের মরদেহ উদ্ধার করেছে র‍্যাব। মঙ্গলবার গভীর রাতে তাজহাটের নির্মাণাধীন একটি বাড়ি থেকে মাটি চাপা অবস্থায় পাওয়া যায় রথীশের মরদেহ। রংপুরের পুলিশ সুপার জানিয়েছেন, স্ত্রী দীপা ভৌমিকের পরকীয়া সম্পর্কের জেরে তাকে হত্যা করা হয়েছে। এই ঘটনায় স্ত্রী-কন্যাসহ চারজনকে আটক করা হয়েছে।

রাষ্ট্রীয় বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ মামলার আইনজীবী ছিলেন রথীশ চন্দ্র ভৌমিক। শুক্রবার তাঁর নিখোঁজের পরপরই রংপুরসহ সারাদেশে শুরু হয় আন্দোলন।

পারিবারিক কলহের জের সন্দেহে সোমবার রথীশ চন্দ্রের স্ত্রী দীপা ভৌমিক ও তার দুই সহকর্মীকে আটক করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। তাদের কাছ থেকে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে মঙ্গলবার রাতে মোল্লাপাড়ায় নির্মাণাধীন একটি ভবনে অভিযান চালায় র‌্যাব। সেখানে মাটির নিচে বস্তাবন্দি অবস্থায় পাওয়া যায় মরদেহ। পরে রথীশের ভাই সুশান্ত ভৌমিক মরদেহ শনাক্ত করেন।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে রথীশের স্ত্রী জানান, তার সহকর্মী তাজহাট উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক কামরুলসহ ছয় জন অংশ নেন এই হত্যাকণ্ডে। ওষুধ দিয়ে অচেতন করে গলা কেটে তাকে হত্যা করা হয়।

মরদেহ উদ্ধারের খবরে ঘটনাস্থলে আসেন রংপুরের আইনজীবীরা। হত্যার সুষ্ঠু বিচার দাবি করেন তারা।

নিখোঁজের পর জানা যায়, শুক্রবার সকাল ৬টার দিকে নিজ বাড়ি থেকে বের হয়ে একজনের সঙ্গে মোটরসাইকেলে শহরে যাচ্ছিলেন রথীশ চন্দ্র। এরপর থেকে তার খোঁজ ছিল না।

*রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন*
সম্পর্কিত সংবাদ
Leave a reply
ডেস্ক রিপোর্ট