স্নানের সেরা সময় কখন? সকাল না রাত?

স্নানের সেরা সময় কখন? সকাল না রাত?

আপনি কি সকালে স্নান করার সময় পান না? দিনের শেষে বাড়ি ফিরে ভাল করে সময় নিয়ে স্নান করাই আপনার অভ্যাস? নাকি সকালে স্নান না করে বাড়ি থেকে বেরনোর কথা ভাবতেই পারেন না? আবার হয়তো যতোই সকালে স্নান করুন না কেন রাতে বাড়ি ফিরে ভাল করে স্নান না করলে আপনার ঘুমই আসে না। অভ্যাস অনুযায়ী আমরা একেক জন দিনের একেক সময় বেছে নিই স্নানের জন্য। জানেন কি সকালে, রাতে যে কোনও সময়ই স্নানের কিছু উপকারিতা রয়েছে? নিজের কাজ ও প্রয়োজনীয়তা অনুযায়ী ঠিক করুন কখন স্নান করবেন।

ইয়েল স্কুল অব মেডিসিনের অধ্যাপক মোনা গোহরা জানাচ্ছেন, যদি আপনি খুব অগোছালো হন, তা হলে অবশ্যই দিনে স্নান করুন। কারণ সকালে স্নান করলে তা ত্বকের ফোলা ভাব কমাতে ও ফ্রেশ দেখাতে সাহায্য করে। যদি কোনও সৃজনশীল কাজের সঙ্গে যুক্ত থাকেন তা হলেও সকালে স্নান করা উচিত। সকালে স্নান করলে আপনাকে সারা দিনের কাজের জন্য সক্রিয় ও উদ্বুদ্ধ করবে। যদি সকালে ওয়ার্কআউট করার অভ্যাস থাকে তা হলেও অবশ্যই ওয়ার্কআউটের পর স্নান করুন। শরীর থেকে যে ক্লেদ বেরোয় তা পরিষ্কার করে ত্বক ভাল রাখতে সাহায্য করবে স্নান।

ন্যাশনাল সেন্টার ফর বায়োটেকনোলজি ইনফরমেশন অনুযায়ী, গরম জলে স্নান করার পর শরীরের তাপমাত্রা কমে যায়। যার ফলে ক্লান্তি দূর হয় ও ঘুম আসে। যারা ইনসমনিয়ায় ভুগছেন তাদের জন্য রাতে স্নান করা খুবই উপকারী।

আবার উইমেন’স স্কিন হেলথ প্রোগ্রাম ফর নর্থওয়েস্টার্ন মেডিসিনের সহকারি অধ্যাপক বেথানি স্ক্লোসারের মতে, রাতে স্নান করলে ত্বক পরিষ্কার ও স্বাস্থ্যোজ্জ্বল থাকে। সারা দিন শরীর থেকে অতিরিক্ত তেল বেরোয় ও ধুলো, ময়লা জমে রাতে স্নান করলে তা পরিষ্কার হয়ে যায়।

আবার স্নান করার সময় জলের তাপমাত্রাও অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। পেশীর শিথিলতার জন্য সবচেয়ে কার্যকর ইষদোষ্ণ জল। যা ঘুম আনতে সাহায্য করে। ঘুম যত ভাল হবে শরীর তত সুস্থ থাকবে। ত্বক ও চুলও উজ্জ্বল হবে। আবার খুস্কি দূর করতেও উপকারী ইষদোষ্ণ জল।

যদি সকালে কাজে বেরনোর সময় স্নান করা আপনার অভ্যাস হয় বা স্নান না করলে সমস্যা হয় তা হলে অবশ্যই সকালে স্নান করুন। কিন্তু যদি ঘুমের সমস্যা থাকে বা ভাল ত্বক পেতে চান তা হলে অবশ্যই রাতে স্নান করুন। যদি রাতে স্নান নাও করেন, ঘুমনোর সময় অবশ্যই অন্তত ভাল করে মুখ ধুয়ে, পরিষ্কার করে তবেই শুতে যান।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট