স্মিথ-ওয়ার্নার নিষিদ্ধ হতে পারেন আজীবন

স্মিথ-ওয়ার্নার নিষিদ্ধ হতে পারেন আজীবন

অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেটের কলঙ্কজনক অধ্যায় রচনা করায় আজীবন নিষিদ্ধের খড়গে পড়তে পারেন অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথ ও সহ-অধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নার। ক্রিকইনফো এমনটাই জানিয়েছে।

দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে তৃতীয় টেস্টে ‘বল ট্যাম্পারিং’ কাণ্ডের কথা সংবাদ সম্মেলনে এসে স্বীকার করেন স্মিথ। এর আগেই মাঠের এই ঘটনা ক্যামেরায় ধরা পড়ে। আর তাতেই নিন্দার ঝড় উঠে ক্রিকেটবিশ্বে।

এই ঘটনার পর রোববার অধিনায়ক স্মিথ ও সহ-অধিনায়ক ওয়ার্নার দু’জনেই পদত্যাগ করেন। একটি টেস্ট ম্যাচ চলাকালীন বল টেম্পারিংয়ের দায়ে অধিনায়ক ও সহ-অধিনায়কের সরে যাওয়ার ঘটনা ক্রিকেটে হয়তো এবারই প্রথম। পাশাপাশি এটি বিরল ঘটনা হয়েই থাকবে ক্রিকেট বিশ্বে। দল পরিচালনার জন্য দায়িত্ব হারালেও দলের সাথেই থাকবেন স্মিথ ও ওয়ার্নার। টেস্টের চতুর্থ দিন থেকে অস্ট্রেলিয়ার নেতৃত্বের দায়িত্ব পেলেন উইকেটরক্ষক টিম পাইন। হয়তো সিরিজের বাকি ম্যাচগুলোতেও দায়িত্ব পালন করতে হতে পারে পাইনকে। তবে এটি নিশ্চিত এই সিরিজে তো নয়ই, ভবিষ্যতে আর কখনো স্মিথের অধিনায়কত্ব পাওয়া নিয়ে সংশয় থাকবে।

এই ঘটনার শাস্তি হিসেবে স্মিথকে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে শেষ টেস্টটি নিষিদ্ধ করেছেন আইসিসি। আইন অনুযায়ী এটিই বল বিকৃত করার সর্বোচ্চ শাস্তি। তাকে শতভাগ ম্যাচ ফি জরিমানা করা হয়েছে, চারটি ডিমেরিট পয়েন্টও দেয়া হয়েছে।

এছাড়া বল বিকৃত করার জন্য আসল দায়ী ফিল্ডার ক্যামেরন বেনক্রফটকে তিনটি ডিমেরিট পয়েন্ট ও ম্যাচ ফির ৭৫ ভাগ অর্থ জরিমানা করা হয়েছে।

এখন ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার শাস্তির পালা। অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেটের কোড অব কন্ডাক্ট ভঙের সর্বোচ্চ শাস্তি আজীবন নিষেধাজ্ঞার মুখে পড়তে পারেন স্মিথ-ওয়ার্নার।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট