হাসপাতাল যেন রাজনীতির কেন্দ্র না হয়: ওবায়দুল কাদের

হাসপাতাল যেন রাজনীতির কেন্দ্র না হয়: ওবায়দুল কাদের

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, খালেদা জিয়ার চিকিৎসাকে কেন্দ্র করে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় যেন রাজনীতির কেন্দ্র না হয়ে ওঠে। হাসপাতালে থাকা অন্যান্য রোগীদের যেন কোনো অসুবিধা না হয়।

শনিবার সন্ধ্যায় রাজধানীর মোহাম্মদপুরে আওয়ামী লীগের গণসংযোগ কর্মসূচির অংশ হিসেবে প্রচারপত্র বিতরণ কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করে তিনি এ সব কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, আমরা বেগম জিয়ার চিকিৎসার জন্য আগে বলেছিলাম, কিন্তু আসেনি। আদালতের কারণে অবশেষে বেগম জিয়া হাসপাতালে আসলেন। বিএনপি নেতাদের কাছে প্রশ্ন, এখন তিনি কোন হাসপাতালে?  নানান ঘাটের পানি ঘোলা করে শেষ পর্যন্ত রাজি হয়েছেন তিনি। বিএনপি বেগম জিয়ার চিকিৎসাকে ইস্যু করে রাজনীতি করেছে। এটা করাই তাদের উদ্দেশ্য ছিল। দেরিতে হলেও রাজি হওয়ায় তাকে স্বাগত জানাই।

তিনি আরও বলেন, বিএনপি আন্দোলন নয়, বোমা-সন্ত্রাস ও নাশকতার প্রস্তুতি নিচ্ছে। কিন্তু এবার নাশকতা করলে জনগণকে সঙ্গে নিয়ে প্রতিরোধ করা হবে।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, উত্তরবঙ্গে নৌকার পক্ষে গণজোয়ার দেখেছি। লাখ লাখ মানুষের বাঁধভাঙা জোয়ার এসেছিলো। চট্টগ্রাম, কুমিল্লা ও ফেনীতেও গণজোয়ার। বিএনপির ঘাঁটি চকরিয়াতেও আওয়ামী লীগের গণজোয়ার দেখেছি। আমরা যেখানে যাচ্ছি, সেখানে হাজার হাজার মানুষের ঢল। সকালে রাজধানীর চকবাজারেও নৌকা নৌকা শ্লোগানে মুখরিত। আজকে মোহাম্মদপুরেও জনতার ঢল। আপনারা উল্লসিত, কিন্তু আমি উল্লসিত নই। ক্ষমতার দাপট দেখাবেন না। মানুষ ক্ষমতার দাপটকে দেখতে চায় না। ১২টার আগে ভোট শেষ এই ধরণের কথা বলবেন না। ভোট শেষ হওয়ার আগ পর্যন্ত কেন্দ্রে থাকতে হবে। যতক্ষণ ভোট চলবে, ততক্ষণ কেন্দ্রে অবস্থান করতে হবে। ৯১’র কথা ভুলে যাবেন না।

শনিবার সকালে ঢাকার চকবাজারে আওয়ামী লীগের গণসংযোগে গিয়ে বক্তব্য দেওয়ার সময় বিএনপি নির্বাচন ঠেকাতে গোপনে নাশকতার প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন ওবায়দুল কাদের।

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানকের সভাপতিত্বে প্রচারপত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে আরও বক্তৃতা করেন দলের সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, আব্দুর রহমান, অসীম কুমার উকিল,সাদেক খান প্রমুখ।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট