হায়দ্রাবাদের জয়ে হাস্যোজ্জ্বল মুস্তাফিজ

হায়দ্রাবাদের জয়ে হাস্যোজ্জ্বল মুস্তাফিজ

গুজরাট লায়ন্সেকে পাঁচ উইকেটে হারিয়ে নিজেদের পঞ্চম জয় তুলে নিলো মুস্তাফিজের সানরাইজার্স হায়দারাবাদ। এই জয়ে পয়েন্ট টেবিলের চার’এ উঠে এলো হায়দারাবাদ।

হায়দারাবাদের রাজিব গান্ধী স্টেডিয়ামে ১২৭ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে অধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নার (২৪) দলীয় ২৬ রানে আউট হয়ে গেলেও আরেক প্রান্ত ধরে রাখেন শিখর ধাওয়ান।

পরের ব্যাটসম্যানদের সঙ্গে ছোট ছোট জুটি গড়ে হায়দারাবাদের জয় নিশ্চিত করেন তিনি। শিখর ধাওয়ান ৪০ বলে ছয়টি চারে অনবদ্য ৪৭ রান করেন।

এর আগে মুস্তাফিজের কিপ্টে বোলিং নৈপুণ্যে সানরাইজার্স হায়দারাবাদকে ১২৭ রানের লক্ষ্য দেয় গুজরাট লায়ন্স। নির্ধারিত ২০ ওভারে ছয় উইকেটে টিম রায়না’রা সংগ্রহ করে ১২৬ রান। দলের পক্ষে অ্যারন ফিঞ্চ ৫১ রান করেন। কাটার মাস্টার চার ওভারে মাত্র ১৭ রান দিয়ে শিকার করেছেন দু’টি উইকেট। যার মধ্যে ১৪ টি ছিলো ডট বল।

গুজরাট লায়ন্সের শক্তিশালী ব্যাটিং লাইন আপ পুরোপুরিই গুড়িয়ে দেয় কাটার মাস্টার মুস্তাফিজের নেতৃত্বে সানরাইজার্স হায়দারাবাদের পেস অ্যাটাক।

টসে হেরে ব্যাট করতে নেমেই খেই হারায় গুজরাট। প্রথম ওভার ভুবনেশ্বর মেডেন দিয়ে শুরু করলেও ধ্বংসযজ্ঞের শুরুটা হয় মুস্তাফিজের অসাধারণ এক ক্যাচের মাধ্যমে। ভুবনেশ্বর কুমারের বলে শট থার্ড ম্যানে অসাধারণ এক ড্রাইভিং ক্যাচে ডুয়াইন স্মিথকে (১)প্যাভিলনে পাঠান মুস্তাফিজ।

হায়দাবাদের বোলারদের আধিপত্যে মাত্র ৩৪ রানেই গুজরাটের চার ব্যাটসম্যান ফিরে যান সাজঘরে। ষষ্ঠ ওভারে দ্য ফিজ খ্যাত মুস্তাফিজ বল করতে এসে প্রথম বলে কাটার দিয়ে প্রায় আউট করেই দিয়েছিলেন ব্র্যান্ডন ম্যাককালামকে।কিন্তু পয়েন্টে ক্যাচটি হাত ছাড়া করেন শিখর ধাওয়ান।

তবে উইকেটের জন্য ফিজকে বেশি অপেক্ষায় রাখেনি কিউই অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন। ওই ওভারের চতুর্থ বলে ব্যাকওয়ার্ড পয়েন্টে অভূতপূর্ণ এক ক্যাচ ধরে দিনেশ কার্তিককে (০)প্যাভিলনের পথ দেখান।

১৯তম ওভারের প্রথম বলেই রবীন্দ্র জাদেজাকে (১৮) রানে ভুবনেশ্বরের কাছে তালুবন্দী করে প্যাভিলনে ফেরান মুস্তাফিজ।

হায়দারাবাদের বোলারদের মধ্যে উজ্জ্বল ছিলেন বরাবরের মতো কাটার মাস্টার মুস্তাফিজ। চার ওভারে মাত্র ১৭ রানে তুলে নেন দু’টি উইকেট। এছাড়াও ভুবনেশ্বর কুমার দু’টি, আশিষ নেহেরা, ময়সেস হেনরিক একটি করে উইকেট নেন।

সম্পর্কিত সংবাদ
নিজস্ব প্রতিবেদক