হিরোশিমা সফরের অর্থ ওবামার ক্ষমা চাওয়া নয়

হিরোশিমা সফরের অর্থ ওবামার ক্ষমা চাওয়া নয়

মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা জাপানের হিরোশিমা শহর সফরের যে পরিকল্পনা করেছেন তাকে টোকিওর কাছে ওয়াশিংটনের ক্ষমা চাওয়া বলে ব্যাখ্যা করার কোনো সুযোগ নেই। সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে হোয়াইট হাউজের প্রেস সেক্রেটারি জোশ আর্নেস্ট মঙ্গলবার এ কথা জানান।

সাংবাদিকরা জোশ আর্নেস্টের কাছে জানতে চান দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের শেষ পর্যায়ে গিয়ে আণবিক বোমা হামলা চালিয়ে জাপানের হিরোশিমা ও নাগাসাকি শহর ধ্বংস করা হয়েছিল। এজন্য আমেরিকার পক্ষ থেকে প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার ক্ষমা চাওয়া উচিত কিনা।

জবাবে আর্নেস্ট জানান, ওবামার এ সফরকে ক্ষমা চাওয়া হিসেবে ব্যাখ্যা করা যাবে না। তবে তার এ সফরের মধ্যদিয়ে পরমাণু অস্ত্রমুক্ত বিশ্ব গড়ার প্রচেষ্টা ফুটে উঠছে বলে দাবি করেন আর্নেস্ট।

তিনি আরো জানান, যদি লোকজন বিষয়টি এভাবে না দেখেন তাহলে তারা ভুল ব্যাখ্যা করবেন।

আর্নেস্ট তার ভাষায় বলেন, আমেরিকার কোনো ক্ষমতাসীন প্রেসিডেন্টের হিরোশিমা সফরের অর্থই হচ্ছে তিনি পরমাণু অস্ত্রমুক্ত বিশ্ব গড়ার প্রচেষ্টা চালাচ্ছেন।

তবে আর্নেস্টের এ বক্তব্যের সঙ্গে ভিন্ন মত প্রকাশ করেছেন শিকাগোর প্রখ্যাত গ্রন্থকার ও রেডিও সঞ্চালক স্টিফেন লেন্ডম্যান।

তিনি জানান, হিরোশিমা সফরের মধ্যদিয়ে ওবামা নিজেকে পরমাণু অস্ত্র-বিরোধী ব্যক্তি বলে যে ইমেজ গড়ে তুলতে চাইছেন তা একেবারে ‘নগ্ন-মিথ্যা’।

লেন্ডম্যান জানান, এখনো আমেরিকা হচ্ছে বিশ্বের সবচেয়ে বেশি পরমাণু অস্ত্রের দেশ এবং যুদ্ধের আগেভাগেই পরমাণু অস্ত্র ব্যবহারের নীতি অনুসরণ করে। প্রেসিডেন্ট ওবামা সে নীতির পরিবর্তন করেন নি।

*রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন*
সম্পর্কিত সংবাদ
Leave a reply
ডেস্ক রিপোর্ট