৩১ বছরের অপেক্ষার অবসান ইংল্যান্ডের

৩১ বছরের অপেক্ষার অবসান ইংল্যান্ডের

তিন-তিনটি বছর ধরে ইংল্যান্ডের জার্সিতে কোনো গোল পাননি। সেই রাহিম স্টার্লিং শুধু গোল-খরাই কাটালেন না, করলেন জোড়া গোল। স্কোরশিটে নাম লেখালেন মার্কাস রাশফোর্ডও। তাতে স্পেনের মাঠে স্মরণীয় এক জয় পেল ইংল্যান্ড।

সেভিয়াতে সোমবার রাতে উয়েফা নেশন লিগের ম্যাচটি ৩-২ গোলে জিতেছে ইংল্যান্ড। ৩১ বছর পর স্পেনের মাটিতে স্পেনকে হারাল ‘থ্রি লাইনস’রা। সবশেষ ১৯৮৭ সালের ফেব্রুয়ারিতে গ্যারি লিনেকারের চার গোলে ইংল্যান্ড জিতেছিল ৪-২ ব্যবধানে।

এই জয়ে মধুর প্রতিশোধও নেওয়া হলো ইংল্যান্ডের। গত মাসে যে নিজেদের মাঠে স্পেনের কাছে ২-১ গোলে হেরেছিল রাশিয়া বিশ্বকাপের সেমিফাইনালিস্টরা।

২০০৩ সালের পর এই প্রথম ঘরের মাঠে কোনো প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচ হারল স্পেন। এই সময়ে ৩৮ ম্যাচে অপরাজিত ছিল ২০১০ বিশ্বকাপের চ্যাম্পিয়নরা। ঘরের মাঠে প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচে তিন বা এর বেশি গোল হজমের রেকর্ডও তাদের ইতিহাসে এটাই প্রথম।

সোমবার সেভিয়ায় ১৬ মিনিটে রহিম স্টারলিংয়ের গোলে লিড পায় ১৯৬৬ বিশ্বকাপজয়ীরা। পরে ২৯ মিনিটে মার্কাস রাশফোর্ড ব্যবধান দ্বিগুণ করেন। আর বিরতির অনেক আগেই (৩৮ মিনিট) নিজের জোড়া গোল পূর্ণ করে ইংলিশদের ৩-০ ব্যবধানে এগিয়ে দেন স্ট্রাইকার স্টারলিং।

দ্বিতীয়ার্ধে ঘুর দাঁড়ায় স্বাগতিক স্পেন। ৫৮ মিনিটে পাকো আলকাসেরের গোলে ব্যবধান কমায় ২০১০ সালের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা। আর শেষ দিকে আক্রমণের ধার বাড়িয়ে আরও একটি গোল পেলেও হার এড়াতে পারেনি তারা। ম্যাচের নির্ধারিত সময়ের পর অতিরিক্ত সপ্তম মিনিটে গোল করেন সার্জিও রামোস।

এ ম্যাচ হারলেও তিন ম্যাচে দুই জয়ে ৬ পয়েন্ট নিয়ে ‘এ’ লিগের গ্রুপ-৪ এ শীর্ষে আছে স্পেন। একটি জয়ে ইংল্যান্ড ৪ পয়েন্ট নিয়ে রয়েছে দ্বিতীয় স্থানে। আর দুই ম্যাচ শেষে ক্রোয়েশিয়ার ১ পয়েন্ট অর্জন করেছে।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট