আবারও জয়ের নায়ক মাহমুদউল্লাহ

আবারও জয়ের নায়ক মাহমুদউল্লাহ

বিপিএলে নিজেদের প্রথম ম্যাচে রাজশাহীর বিপক্ষে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের শেষ ওভারের বোলিং নৈপুণ্যে জয় পায় খুলনা টাইটান্স। মিরপুরে আজও চমক দেখান তিনি।

আজ আবার প্রায় হেরে যাওয়া ম্যাচে নিজের জাদুর ছড়ি ঘুড়িয়ে দলকে জিতেয়ে দেন এই অলরাউন্ডার। শেষ ওভারে জয়ের জন্য চিটাগাং ভাইকংসের দরকার ছিল মাত্র ৬ রান। শেষ ওভারে আবার বল হাতে তুলে নেন রিয়াদ। ওভারে মাত্র এক রানের বেশি দেননি তিনি। আর তাই ভাইকিংসরা ম্যাচটা হেরে যায় চার রানে।

এবারের বিপিএলে তিন ম্যাচ খেলে দুটিতেই হারল চিটাগাং কিংস। আজ বিফলেই গেল মোহাম্মদ নবীর লড়াইটা। প্রথম ম্যাচে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের বিপক্ষেই চার উইকেট নিয়ে ভাইকিংসদের ২৯ রানের জয় এনে দিয়েছিলেন নবী। আজও খুলনা টাইটান্সের বিপক্ষে বল হাতে তিন উইকেট নেবার পর ব্যাট হাতে করেন মহামূল্যবান ৩৯ রান। মাত্র ২৩ বল খেলে রান করেন তিনি। তবে বৃথাই গেল এই আফগানের লড়াইটা। অপরপ্রান্ত থেকে প্রয়োজনীয় সাহায্য না পাওয়ায় হারতে হলো তাকে।

এছাড়া জহুরুল ইসলাম অমি ২৫ ও চতুরঙ্গ ডি সিলভা ১৯ রান করেন। এই তিনজনের দারুণ ব্যাটিংও টাইটান্সদের বিপক্ষে জেতাতে পারল না তামিম ইকবালের দলকে। ৫৪ রানে ৫ উইকেট পরার পর চিটাগাং ভাইকিংসের হাল ধরেন জহুরুল ও নবী। ২৪ রানের জুটি বেধে প্রাথমিক বিপর্যয়টা সামলান এই দুজন। এরপর ডি সিলভার সাথে গড়েন ৪৪ রানের জুটি। এই জুটিতে মূলত জয় প্রায় নিশ্চিত হয় ভাইকিংসদের। তবে শেষ ওভারে এসে ভাইকিংসদের স্বপ্ন ভেঙে চুরমার করে দেন রিয়াদ।

এর আগে আজ শনিবার দিনের প্রথম এই ম্যাচে টস জিতে খুলনা টাইটান্সকে ব্যাটিংয়ে পাঠান ভাইকিংস অধিনায়ক তামিম ইকবাল। নির্ধারিত ২০ ওভারে ৭ উইকেটে ১২৭ রান করে খুলনা। ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুটা ভালোই করেছিল রিয়াদের দল। রিকি উইসেলেস ও হাসানুজ্জামানের উদ্বোধনী জুটিতে মাত্র ৩ ওভারে ৩৪ রান তুলে নেয় দলটি।

তবে এরপরই ৪ উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়ে যায় টাইটান্সরা। মাত্র ১৭ বলে চারটি চারে ২৮ রান করেন উইসেলেস। এক পর্যায়ে ৪ উইকেটে ৫২ রান ছিল খুলনার স্কোর। তবে পঞ্চম উইকেটে অলক কাপালি ও নিকোলাস পুরান যোগ করেন ২৫ রান। দলীয় ৭৭ রানে মোহাম্মদ নবীর বলে ২৩ রান করে তাসকিনের তালুবন্দী হন কাপালি।

এরপর ষষ্ঠ উইকেটে আরিফুল ইসলামকে নিয়ে আরো ৪৮ রান যোগ করেন পুরান। এই জুটিতেই লড়াই করার মতো স্কোর পায় টাইটান্সরা। ৩০ বলে ২৯ রান করেন পুরান। অপরদিকে ১৬ বলে ২৬ রানে অপরাজিত ছিলেন আরিফুল। চিটাগাংয়ের মোহাম্মদ নবী তিনটি ও তাসকিন আহমেদ নেন দুটি উইকেট।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট