লোকসংগীতের জন্য অপেক্ষা একটি বছর!   

লোকসংগীতের জন্য অপেক্ষা একটি বছর!   

মাটি, মানুষ ও প্রাণের সুর মূর্ছনায় দর্শক-শ্রোতাদের বিমোহিত করে গতকাল শেষ হয়েছে ‘ঢাকা আন্তর্জাতিক লোকসংগীত উৎসব-২০১৬’। সমাপনী দিনেও শৈল্পিক শুদ্ধতায় লোকসংগীতের জ্বরে কেঁপেছেন সংগীতের সমজদাররা। বিশেষ করে ভারতের ওস্তাদ গুলশান মীরের দুই কন্যার গানে মেতে ওঠে স্টেডিয়াম।

রাত তখন সাড়ে ১০ টা। তখন মঞ্চে উঠলেন জনপ্রিয় ফোক গানের ভারতীয় শিল্পী জ্যোতি এবং সুলতানা। যারা নুরান সিস্টার্স নামেই সুপরিচিত। এরপর যৌথভাবে শুরু করলেন মন মাতানো পরিবেশনা। একে একে গাইলেন বিখ্যাত গান `দামা দাম মাস্ত কালান্দার`, `আল্লাহু আল্লাহু` ছাড়াও আরো কিছু বিখ্যাত গান।

indian-singer-l20161113004008

তাদের দু`বোনের গানের সঙ্গে আনন্দে ভেসে গেল আর্মি স্টেডিয়ামের কয়েক হাজার সংগীত পিপাসু মানুষ। চমৎকার এই পরিবেশনা সত্যি প্রশংসার দাবি রাখে। দর্শক-শ্রোতারা এই দুই বোনের পারফর্মের পুরো সময়টা করতালিতে মেতে ছিলেন। বিখ্যাত ওস্তাদ গুলশান মীরের কন্যা জ্যোতি এবং সুলতানা ওরফে নুরান সিস্টার্স। শৈশবে তারা পিতার কাছ থেকে সুফী সংগীতের প্রশিক্ষণ নেন। তারা নিজেদের ঐতিহ্যের সঙ্গে শেকড় সন্ধানী গানগুলো গেয়ে গোটা উপমহাদেশে জনপ্রিয়তা লাভ করেছেন।

নুরান সিস্টার্সের আগে মঞ্চ মাতান উপমহাদেশের বরেণ্য বংশীবাদক ও লোকগানের শিল্পী বারী সিদ্দিকী। বারী সিদ্দিকী মঞ্চে আসেন বাঁশি হাতে। দীর্ঘক্ষণ তিনি বাঁশির সুরে মোহিত করে রাখেন দর্শকদের। তারপরই গেয়ে ওঠেন তার জনপ্রিয় গান পুবালী বাতাসে গানটি। এরপর তিনি রজনী, মালিক ছাড়া গতি নাই দয়াল বাবা ও আরো বেশ কিছু গান।

এদিকে, শেষ হল তিনদিন ব্যাপী আয়োজিত ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ফোক ফেস্ট, আন্তর্জাতিক লোকসংগীত উৎসব-২০১৬। লাখো দর্শকের প্রাণ ছুঁয়ে যাওয়া এই উৎসবে অংশগ্রহণ করেনছে ৭ দেশের শতাধিক শিল্পী। এমন একটা উৎসবের জন্য অপেক্ষা করতে হবে আরেকটি বছর।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট