মাশরাফিদের টানা চার হারের দিনে শীর্ষে সাকিবদের ঢাকা

মাশরাফিদের টানা চার হারের দিনে শীর্ষে সাকিবদের ঢাকা

দল নিয়ে ফ্রাঞ্চাইজির সঙ্গে মাশরাফির বিরোধ। সোমবার সকালেই ক্রিকেট পাড়া সরগরম করে তুলেছিল এই খবর। শেষ পর্যন্ত রাগ কমিয়ে মাশরাফি খেললেন; কিন্তু ঝড়ো ব্যাটিং করেও জেতাতে পারলেন না দলকে। বিপিএলের চতুর্থ আসরে এসে টানা চতুর্থ ম্যাচেও সতীর্থদের ব্যর্থতায় আরও একবার পরাজয় দেখতে হলো মাশরাফি বিন মর্তুজার কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সকে।

সাকিব আল হাসানের ঢাকা ডায়নামাইটসের বিপক্ষে ৩৩ রানে হার মানে কুমিল্লা। ঢাকা ডায়নামাইটসের করা ১৯৪ রানের বিশাল ইনিংসের জবাবে ব্যাট করতে নেমে কুমিল্লা ৯ উইকেট হারিয়ে থেমে যায় ১৬১ রানে।

মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে ঢাকা পর্বের প্রথম ধাপের এটিই ছিল শেষ ম্যাচ। আজ সোমবার সন্ধ্যা সাতটায় মাঠে নামে কুমিল্লা-ঢাকা। চলমান বিপিএলের ১৩তম ম্যাচে মাঠে নামে দুই দল। টস জিতে আগে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন কুমিল্লা দলপতি মাশরাফি।

টস হেরে ব্যাট করতে নেমে বিপিএলের চলতি আসরের সর্বোচ্চ রান সংগ্রহ করে ঢাকা। নির্ধারিত ২০ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ১৯৪ রান করে ঢাকা ডায়নামাইটস।

ব্যাট হাতে ঢাকার মেহেদী মারুফ ৬০ রান করেন। তার ইনিংসে ৪টি চার ও ৩টি ছক্কার মার ছিল। ৫টি চারের মারে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৪৩ রান করেন নাসির হোসেন। এ ছাড়া সাকিব আল হাসানের ১৩ বলে ২৪ ও সাঙ্গাকারার ২০ রানে ভর করে ১৯৪ রানের বড় সংগ্রহ পায় ঢাকা।

বল হাতে কুমিল্লার রশিদ খান ৩টি উইকেট নেন। ১টি করে উইকেট নেন আল আমিন ও রায়ান টেন ডেসকাট।

পরে ব্যাট হাতে কুমিল্লার ইনিংসে সর্বোচ্চ ৪৭ রান করেন অধিনায়ক মাশরাফি। তার ঝড়ো ইনিংসে ৫টি ছক্কা ও ২টি চারের মার ছিল। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ২০ রান করেন সোহেল তানভীর। ৮ বলে ১৮ রান করে অপরাজিত থাকেন সাইফউদ্দিন।

বল হাতে ঢাকার মোহাম্মদ শহীদ ৩টি ও সেকুজি প্রসন্ন ২টি উইকেট নেন। ১টি করে উইকেট নেন বোপারা, সানজামুল ও নাসির হোসেন। ম্যাচসেরা নির্বাচিত হন ঢাকার মেহেদী মারুফ।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট