জোকোভিচকে হারিয়ে এক নম্বরেই মারে

জোকোভিচকে হারিয়ে এক নম্বরেই মারে

শীর্ষে ওঠার লড়াইয়ে অ্যান্ডি মারের সঙ্গে পারলেন না নোভাক জোকোভিচ। রোববার রাতে এটিপি ওয়ার্ল্ড ট্যুরের ফাইনালে জোকোভিচকে হারিয়ে র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষেই রইলেন মারে। পাঁচবারের চ্যাম্পিয়ন সার্বিয়ান তারকাকে হারিয়ে টুর্নামেন্টের প্রথম শিরোপা জয় করেছেন এই ব্রিটিশ তারকা।

ফাইনালে যে জিতবে সে-ই শীর্ষে থেকে বছর শেষ করবে- এমন সমীকরণ সামনে রেখে মুখোমুখি হয়েছিলেন মারে ও জোকোভিচ। লন্ডনের জিরো-টু অ্যারেনায় অনুষ্ঠিত ফাইনালে তাতে জোকারকে ৬-৩, ৬-৪ গেমে হারিয়ে শীর্ষস্থান ধরে রাখলেন ব্রিটিশ তারকা মারে।

জোকোভিচকে হারিয়ে শীর্ষস্থান ধরে রাখায় বেশ উচ্ছ্বসিত মারে। বিবিসিকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে এই স্কটিশ তারকা বলেন, ‘জিততে পেরে আমি অনেক আনন্দিত এবং বিশ্বের সেরা খেলোয়াড় হওয়ার অনুভূতি স্পেশাল। এমন একটি ম্যাচে নোভাকের বিপক্ষে খেলাও স্পেশাল।’

জোকোভিচকে হারিয়ে এই নিয়ে টানা ২৪ ম্যাচ জয়ের রেকর্ড গড়লেন মারে। এটিপি ওয়ার্লড ট্যুরের এর আগের চার আসরেই শিরোপা জিতেছিলেন এই সার্বিয়ান তারকা। রোববার জিততে পারলে রজার ফেদেরারের সমান ছয়বার টুর্নামেন্টের শিরোপা জয়ের রেকর্ড স্পর্শ করতে পারতেন তিনি। তবে মারের কাছে হেরে ফেদেরারকে আর ছোঁয়া হলো না জোকারের।

৩৫ বারের সাক্ষাতে এই নিয়ে ১১ বার জোকোভিচের সঙ্গে জেতা মারে বললেন, ‘আমরা এর আগে গ্র্যান্ড-স্লাম ও অলিম্পিকের ফাইনালে লড়েছি। কিন্তু আমি এটি জিততে পেরে বেশ আনন্দিত। এটি এমন এক অর্জন যেটি আমি আশা করিনি।’

মারের সাফল্যের দিন তার ভাই জেমি মারেও সাফল্যের হাসি হেসেছেন। ব্রুনো সোয়ার্সের সঙ্গে জুটি বেঁধে পুরুষ ডাবলসের নাম্বার ওয়ানের চূড়ায় ওঠেছেন জেমি।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট