হোয়াইট ওয়াশের লজ্জা এড়ালো অজিরা

হোয়াইট ওয়াশের লজ্জা এড়ালো অজিরা

গোলাপী বলেই ভাগ্য ফিরল অস্ট্রেলিয়ার৷ অবশেষে জয়ের সরণীতে ক্যাঙারু বাহিনী৷ দেওয়ালে পিঠ থেকে যাওয়া থেকেই ঘুরে দাঁড়াল অজিরা। নিজেদের ঘরের মাটিতে এক প্রকার হোয়াইট-ওয়াশ হওয়ার লজ্জার সামনে পড়ে গিয়েছিল স্টিভ স্মিথের দল। আগের টেস্টগুলোতে যেভাবে খেলেছে, মনে হচ্ছিল না এই লজ্জা তারা এড়াতে পারবে। আগের সিরিজেই শ্রীলঙ্কার কাছে এই লজ্জায় পড়েছে তারা। ঘরের মাঠের সিরিজে একের পর এক ইনিংসে রীতিমতো নাকাল হচ্ছিল দক্ষিণ আফ্রিকার কাছে। কিন্তু অ্যাডিলেডে গোলাপী বলে দিন-রাতের টেস্টটা ৭ উইকেটে জিতে ঘুরে দাঁড়ানোর বার্তা দিল অস্ট্রেলিয়া।

এই টেস্টের আগে অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটে অনেক ঘটনা ঘটেছে৷ দলের ক্রমাগত ব্যর্থতার দায় নিয়ে প্রধান নির্বাচকের পদ থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন রডনি মার্শ। আগের টেস্টের দল থেকে পাঁচজনকে বাদ দিয়ে নতুন ছ’জনকে ডেকে পাঠিয়েছিল অস্ট্রেলিয়া। এই টেস্টে অভিষেকই হয়েছে তিনজনের। অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটে এমন টালমাটাল সময় খুব বেশি আসেনি। অদল-বদল হিতে বিপরীতও হতে পারত। কিন্তু নিজেদের ব্যাগি গ্রিন টুপিটার সম্মান বাঁচাতে লড়ল যেন দাঁত চেপে।

আগে দিনের শুরুতে আগের দিনের করা ৬ উইকেটে ১৯৪ রান নিয়ে ব্যাট করতে নামে প্রটিয়ারা। কিন্তু ব্যাট করতে নেমেই দলীয় ২০৫ রানে উইকেট রক্ষক ব্যাটসম্যান ডি ককের উইকেট হারিয়ে বসে সফরকারীরা।

তবে আগের দিন ৮১ রান নিয়ে খেলা শেষ করা ব্যাটসম্যান স্টিফেন কুক ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় শতক তুলে নেন। কিন্তু নীচের সারির ব্যাটসম্যানরা তাকে সঙ্গ দিতে না পারায় অজি বোলারদের তোপে মাত্র ২৫০ রানে গুটিয়ে যায় দক্ষিণ আফ্রিকা।

স্টিফেন কুকের ব্যাট থেকে আসে ১০৪ রান। অজিদের পক্ষে  মিচেল স্টার্ক নেন ৪ উইকেট।

১২৭ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে দুর্দান্ত সূচনা পায় অজিরা। দলীয় ৬৪ রানে দুই উইকেট হারালেও ওপেনার রেনশোর অপরাজিত ৩৪ রানের উপর ভর করে ৭ উইকেট হাতে রেখে জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় অজিরা।

অজি ব্যাটসম্যান উসমান খাজা ম্যাচ সেরা এবং প্রোটিয়া পেসার ভারনন ফিলান্ডার সিরিজ সেরা নির্বাচিত হন।

অস্ট্রেলিয়া এর আগে টানা পাঁচ টেস্ট হেরেছিল। শ্রীলঙ্কার মাটিতে তিন ম্যাচের সিরিজে হোয়াইটওয়াশ হওয়ার পর দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে প্রথম দুই টেস্ট হেরে সিরিজ খোয়ায়।

তবে এই টেস্ট জিতে ঘরের মাঠে তিন বা তার বেশি ম্যাচের সিরিজে হার এড়াল অজিরা।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট